মেঘমালারা আকাশ পথে
আর আমি...
কি জানি কি ভেবে,
ছুটছি সেই মেঘমালার পিছে।

আমার কামনা- বাসনা
সেই ঠাকুর দেবতা জানে,
কি জানি চেয়েছিলাম সেই কবে!

করজোড় করে পুরোনো সেই মন্দিরে
একাগ্রমনে ধ্যানে মগ্ন আমি,
সিদ্ধি দেবতা ছিলো সেই ঘরে।

প্রশ্ন করেছিলাম পুরোহিত কে
ওহে পুরোহিত..
কি করে আমার কামনা পূরণ হবে?

হেসে পুরোহিত বলেছিলেন
তুমি তো সেই ছোট খোকা,
বুঝবে সেদিন-যেদিন অনেক বড় হবে।

মেঘমালারা আজো আকাশ পথে
ছুটছে সেতো নিজের ইচ্ছে মতে,
আর আমি বদলে গেছি।

উত্তরে পাহাড়,
যার পাদদেশে ঘর বাঁধার বাসনা ছিল
সেই বাসনা আজ
পাহাড়ের পরতে পরতে
ভাঁজ পরে গেছে।

ভাঁজ পড়া বাসনা গুলো
মরিচিকার মতো লালচে হয়ে
ঝরনার বারি ধারায়
সাগরের অতল তলে তলিয়ে গেছে।