হাজার কবির সূতিকাগার এই বাংলা। মধ্যযুগের সন্মানিত কবি মুকুন্দরামকে সকল কবির প্রতীকী হিসেবে দেখা হয়েছে।( তথ্যমতে তাঁর পূর্বপুরুষ কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন)। নবান্ন উৎসব বর্তমানে খুব একটা দেখা যায়না, কিন্তু এর আবেদন রয়েই গেছে। এই দেশের কৃষকের সুখ-দুখ ভালবাসা এর সাথে জড়িত।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ এপ্রিল ১৯৭১
গল্প/কবিতা: ৩৬টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - নবান্ন (অক্টোবর ২০১৯)

এইখানে এই দেশে
নবান্ন

সংখ্যা

মোঃ মোখলেছুর রহমান

comment ৪  favorite ০  import_contacts ৫৩
এইখানে ডেকেছিল কবি মুকুন্দরাম
এইখানে এইদেশে নবান্নের উৎসবে;
এইখানে ফসলের বুকে নরম বিশ্রাম।

এইখানে গোলা ভরে পাবে ধানের আদর
স্বপ্ন ছুঁয়ে ছুঁয়ে জমে দিনের আয়েশ যত;
কঙ্কন নিক্কণে মোছে বধু ধানের গতর।

পানতার পলি পেয়ে জাগে নবান্নের আশা-
সারারাত জেগে থাকে,সব গাঁথা ভালো থাকে;
সোনা ধানে সোনা ঝরে, ভরে গোলা ভালবাসা।

এপাড়া ওপাড়া সব ভালবাসা ভরা খাম,
খেয়ে যাও, নিয়ে যাও সাথে সৌহার্দ্য পায়েশ
খুবকরে লিখেছেন কবি মুকুন্দরাম।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement