একুশ মানে দুনিয়া কাঁপানো একটি সফল আন্দোলন-
কুচক্রী আর রক্তখেকো পাকিস্থানীদের আস্ফালন।
শেষ রক্ষা হয়নি তাদের , বাংলার হয়েছে জয়-
রক্ষা করেছি মায়ের ভাষা , ছড়িয়েছি বিশ্বময়।
শপথ করছি দেশের নামে, গাইবো বাংলার গান-
হীন স্বার্থে আজ বাংলা ভাষার হচ্ছে কত অপমান!
দস্যুদল খাচ্ছে গিলে বাংলা ভাষার শব্দমালা-
দেশপ্রেম কি গিয়েছি ভুলে ? বুকে মোর করছে জ্বালা।
রক্ত চাও ? আরো দিব , তবু বিকৃত করোনা ভাষা-
প্রতিফলন ঘটুক দেশপ্রেমে মায়ের ভালবাসা।
তিমির রাত্রি ঘুচালো যারা , রাখলো ভাষার মান-
রফিক সালাম সেই জব্বারের মহান আত্মদান।
ইতিহাসের পাতায় নয়, শহীদ মিনারের বেদীতে নয়-
লক্ষ প্রাণের ভালবাসায় তারা মোদের অন্তরে রয়।
ভাগ্যবান জাতি মোরা , মায়ের ভাষায় কই কথা-
লড়াই করি কলম হাতে , বুকে নিয়ে দুঃখ-ব্যথা।
বাকরুদ্ধ হইনি সেদিন, সয়েছি শত অত্যাচার-
সারাদেশে সর্বস্তরে চাই বাংলার ব্যবহার।


পাদটীকা: কবিতাটির আলাদা বৈশিষ্ট্য হলো , কবিতাটির প্রতিটি লাইনের প্রথম অক্ষর গুলি মিলিয়ে হবে
“ একুশের শহীদদের প্রতি রইল ভালবাসা। ”