কষ্ট যেমন অনেক প্রকার তেমনই আছে তার আ-কারও উ-কার
তবে লেখিব আমি আজ কিছু মনঃ কষ্টের ব্যাপার;

কষ্ট যখন মনের ব্যাপার সর্ব অঙ্গ কি তখন বাহিরে তার,
সমস্ত দেহ জুড়ে যখন মনের বিস্তার কি করে পায় তখন কুনো অঙ্গ তাহা
হতে নিস্তার?
শ্বাস প্রশ্বাসে থাকে তখন শুধু নিঃশ্বাসের ভার প্রশ্বাস যখন স্বস্তির প্রকাশ,
মনের কষ্টের মাঝে থাকে তখন শুধু হায়হুতাস !
যেনও সর্ব অঙ্গে ব্যাথা ওষুধ দিবো কুথা, ব্যাথায় ব্যাথায় জীবন জর্জরিত
যেমন কাঁচা ঘায়ে লবনের ছিটা ।
মস্তিষ্কও বা স্নায়ুতন্ত্র যখন পায় না কুনো দিশা ও দেহও কোষের প্রতিটি
কোষ তখন সুতা নালীর মত নার্ভে মেশা !
মনের বাড়ি মধুপুর অইত দেখা যায় তারে নয়তো বেশী দূর দিবা নিশি
পেরিয়ে যায় যেতে ঐ সুদুর, মনের মাঝারে যখন সব হতাসার সুর !
মাথার মাঝে ব্যাথার কষ্ট চুখে মুখে তার যন্ত্রনা স্পষ্ট ব্যাবহারে তার সৌজন্যতা
ভ্রষ্ট কথা বার্তায় রুক্ষও রুষ্ট ।
আবার বিরহ ব্যাথার কি যে কষ্ট যে বুঝেছে সে হয়েছে নিঃস্ব,
প্রেম ভালবাসার কষ্টে যার সারাটা জীবন নষ্ট !
হাভাতের কষ্ট যখন কুনো ক্ষুদারথের কষ্ট ক্রনিক অপুষ্টিতে ভুগে হয় দৃশ্যত
অন্ধও বুঝে না দেখে না কিছু ভাল না মন্দ !
অবহেলার কষ্ট ভালবাসার কষ্ট অতঃপর আছে হীন মন্যতার কষ্ট যখন সকল
কষ্টের উৎসও মনঃ মাঝারের কষ্ট !
পিতার কষ্ট মাতার কষ্ট এতিম আর অনাথের মনের কষ্ট কম কিসে তা বলত
কেষ্টও, তাই সব কষ্ট সমানে সমান যাহার মাঝে নেই তারতম্যের মান !
কষ্ট যখন সুখের লাগি তখন কি আর থাকে সে সমান আবেগি,
হয়ে যায় তখন শুধু তা ভ্রান্তি বিলাসী ।