ভাষার কি সাধ্য চর্চা করে তোমার ভালোবাসা,
জীবন দিয়ে দেখিয়ে গেছ নব জীবনের দিশা।
অবুঝ আমি বুঝিনি তোমার নীরব চোখের ভাষা,
বিন্দু বিন্দু অশ্রু জলে গড়া হৃদয়ের আশা।

তোমার ত্যাগের মহিমার কোন তুলনা চলেনা,
সারাটি জীবন দিয়ে গেলে শুধু বিনিময় নিলেনা।
দশটি মাস কষ্ট সয়েছ দেখাতে আলোর মুখ,
আমার জন্য বিলিয়ে দিয়েছ তোমার নিজের সুখ।
পরম যত্নে আমায় তুমি লালন করেছ মা,
শত কষ্টেও আমার জন্য কখনো বলনি 'না'।

নিজে না খেয়ে আমায় দিয়েছ বুঝতে দাওনি তখন,
আমার অসুখে রাত্রি জেগে করেছ তুমি যতন।
সুখের ছায়ায় রেখেছ মাগো বটবৃক্ষের মতন,
পাখির ডানায় আগলে রেখেছ আমায় সারাটি ক্ষণ।
ব্যথা বেদনার ঝড় বৃষ্টি সামাল দিয়েছ একা,
লুকিয়ে রেখেছ আঁচল তলে জেনে বিপদের কথা।

কতবার তবু ভুল বুঝেছি , দিয়েছি তোমায় ব্যথা,
কতনা ভেঙ্গেছি তোমার হৃদয়, তোমায় দেয়া কথা।
এমনি যাতনা কত না দিয়েছি করেছি কত না পাপ,
মনের ভুলেও দাওনি তবুও আমায় অভিশাপ।
দু হাত তুলে করেছ দোয়া আল্লার দরবারে,
আমায় যেন আসীন করে সম্মানের শিখরে।

আজকে আমি যা কিছু হয়েছি সবই তোমার দান,
তোমার সেবায় এই জীবনের যেন হয় অবসান।
পর জীবনে তোমার চরণে হয় যেন মাগো ঠাঁই,
এইটুকু দোয়া বিধাতার কাছে, আর কিছু যে না চাই।