মানুষের মন বড়ই জটিল, কখন যে কি চায়,
বাঁচার জন্য বেঁচে থাকে, কেউ মরণে মুক্তি পায়।
পেটের ক্ষুধায় আত্ম হনন কেউ করেছে কভু ?
মনের ক্ষুধায় জীবনাবসান করছে শত তবু ।
প্রকৃত কারণ জানেন কেবল অন্তর্যামী প্রভু ।
গরীবের ঘরে অগণিত মুখ, খাবার কদাপি জোটে,
গাদাগাদি করে রাত করে পার, সকাল কলহে কাটে।
নাইকো ভূষণ, নাইকো বসত, ফুটপাথেতে বাস,
মরতে তবু চায়না কভু, জীবন মনের আশ ।
মরণ ব্যধি যাতনা কাতর, নিত্য মৃত্যু চায়,
আসলে মরণ চোখের সামনে পালিয়ে বাঁচতে চায়।
সামনে খাবার পেটে ক্ষুধা নাই, চিবুকে হাসি না আসে,
এতই উপরে উঠেছে যে তাই, কেউ নেই আজ পাশে।
প্রাসাদসম অট্টালিকায় একাকী শূন্য ঘরে,
কড়িকাঠ গুনে কাটে যে প্রহর, কিছু না মনেতে ধরে।
শীতাতপ ঘরে টাকার বালিশে শুয়ে শুয়ে কেউ ভাবে
জীবনের মানে, সুখের সঙ্গ, দুঃখ বলে কাকে ?
চাওয়ার সাথে পাচ্ছে সবই, মনেতে শান্তি নাই,
সুখের আশায় আত্ম হনন করছে বুঝি তাই ।