একজন সর্বহারা মানুষের হৃদয় থেকে যখন তার প্রিয় মানুষটি অন্যের ফাঁদে পড়ে দূরে চলে যায়,তখন সে আর ফিরে আসে না কখনো।ফলে ভাঙা মন নিয়ে সর্বহারা মানুষটি এমন তরো ভাবে আক্ষেপ করে জীবন কাটাতে বাধ্য হয়।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১২ অক্টোবর ১৯৯২
গল্প/কবিতা: ৩৪টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - ভাঙ্গা মন (নভেম্বর ২০১৯)

রক্তাক্ত পিঞ্জরপুর
ভাঙ্গা মন

সংখ্যা

নাজমুল হুসাইন

comment ৩  favorite ০  import_contacts ২৯
আহত আর্তনাদ সুরে,রক্তাক্ত পিঞ্জর পুরে,
বিদায় বাঁশরী বাজে বাঁশরীয়ার ঘরে।
অমাবস্যা রাজ,জয় করে আজ চাঁদোয়া দূর্গ,
লুন্ঠিত শশী তাই নিশিরাজে করে প্রেম রঙ্গ!
সনাতনে আজ রক্তক্ষরণ,ব্যথা পিঞ্জর পুরে,
পাথার পরী ডোবায় তরী সাধের পাষাণ গোরে।
কে জানিত ও আঁখিতে,ফাগুন এলে ঝরবে আগুন,
সর্বনাশী করালগ্রাসী পোড়াবে তা কয় গুন?
কে জানিত কাটলে ডানা,ক্ষয়ে ক্ষয়ে যাবে মরণ ঘ্রাণ,
কে জানিত আলগা খাঁচার এমন ভাঙবেরে মন-প্রাণ?
কে জানিত দূর্গে এমন আসবে নেমে দূর্গতি,
মেঘ ছাওয়ারে,দূর হাওয়ারে,ভেজাবে প্রাণ-জ্যোতি?
মন চিনচিন করে,পিঞ্জর পুরে,খাঁ খাঁ মরুভুমি,
পরাজিত জেল,মৃত্যুর শেল,আকড়ে ধরে খুন চুমি।
অমানিশার ঘুম ঘোর ধরে,লুন্ঠিত শশী গেলে বহুদূরে,
একবার উড়ে গেলে পাখি,আর নাহি ফেরে পিঞ্জর পুরে।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement