আহত আর্তনাদ সুরে,রক্তাক্ত পিঞ্জর পুরে,
বিদায় বাঁশরী বাজে বাঁশরীয়ার ঘরে।
অমাবস্যা রাজ,জয় করে আজ চাঁদোয়া দূর্গ,
লুন্ঠিত শশী তাই নিশিরাজে করে প্রেম রঙ্গ!
সনাতনে আজ রক্তক্ষরণ,ব্যথা পিঞ্জর পুরে,
পাথার পরী ডোবায় তরী সাধের পাষাণ গোরে।
কে জানিত ও আঁখিতে,ফাগুন এলে ঝরবে আগুন,
সর্বনাশী করালগ্রাসী পোড়াবে তা কয় গুন?
কে জানিত কাটলে ডানা,ক্ষয়ে ক্ষয়ে যাবে মরণ ঘ্রাণ,
কে জানিত আলগা খাঁচার এমন ভাঙবেরে মন-প্রাণ?
কে জানিত দূর্গে এমন আসবে নেমে দূর্গতি,
মেঘ ছাওয়ারে,দূর হাওয়ারে,ভেজাবে প্রাণ-জ্যোতি?
মন চিনচিন করে,পিঞ্জর পুরে,খাঁ খাঁ মরুভুমি,
পরাজিত জেল,মৃত্যুর শেল,আকড়ে ধরে খুন চুমি।
অমানিশার ঘুম ঘোর ধরে,লুন্ঠিত শশী গেলে বহুদূরে,
একবার উড়ে গেলে পাখি,আর নাহি ফেরে পিঞ্জর পুরে।