ঘটনাবহুল ১৫ আগস্টের সকাল বেলা
রোজকার মতো অনেকেই করেছিলো হেলাফেলা।
দিনটি ছিলো পবিত্র শুক্রবার
তাও কেন ঘটল মর্মান্তিক হত্যাকান্ডের হাহাকার!
আক্রান্ত হলো ৩২ নং রোডের ৬৭৭ নং বাড়ি
যাকে ঘিরে রেখেছিলো বঙ্গসেনা অভ্যুত্থানকারীদের ট্যাংকের সারি।
আক্রমণকারীরা আক্রমণ করলো শেখ মুজিবকে, যিনি তৎকালীন মহামান্য রাষ্ট্রপতি
বিনা উস্কানিতে গুলিবর্ষণ করলো , এ কী সৈনিকদের ভ্রমমতি!
সিড়ির ধাপে পড়ে রইল তাঁর রক্তাপ্লুত মৃতদেহ
বাঙালি সৈনিকরা কীভাবে করলো তাকে এমন হায়!
সাথে মারা পড়লো তার পরিবারের ছোট-বড় সকল সদস্য
বাংলার ইতিহাসে তা আজো বড়ো রহস্য।
যে ব্যক্তি সারা জীবন বাঙালি জাতির জন্য সংগ্রাম করে গেলেন
ব্রাশফায়ারে শতছিন্ন দেহ ছাড়া আর তিনি কী পেলেন ?