বদ্ধ ঘরে রুদ্ধ জীবন,
আঁধারের ক্রীতদাস।
খুঁজে পেলো আজি উত্তর মন,
নিয়তিরই উপহাস।

যারে আমার সব ভেবেছি,
যতনে নিয়েছি বরে,
সেইতো সবেরে পর করেছে,
গোপনে গিয়েছে সরে।

কায়ায় ছিলেম মুগ্ধ যে তার,
চোখ কান যেন বন্ধ।
দেখেও দেখিনি দোষ গুণ তার,
প্রেমেতে ছিলেম অন্ধ।

প্রতিবারে তার রাখতে গিয়েছি,
একটি কথার দাম।
রোষানলে তার হয়ে গেছে ছাই,
আপনারই ধরাধাম।

কারো কাছে কভু প্রয়োজনে তাও,
করেনিকো মাথা নিচু,
অহংবোধে ছুটে গেছে সে যে,
লক্ষ্যেরই পিছু পিছু।

জানতে চেয়েছি লক্ষ্যটা তার,
বলেছে কপট হেসে,
দেবেনাকো ছাড়,বলে বারবার,
মুখে মুখে ভালবেসে।

খুঁজে গেছে সুখ প্রতিবারে তার,
অাত্ম মর্যাদায়,
নিজ সম্মানে পর অপমানে,
কুড়ে কুড়ে খেলো হায়।

নিজের কথারে রাখতে সে ঠিক,
অার সবারেই নষ্ট,
করেছে সবারে নিজ ছলনায়,
হয়ে গেছে পথভ্রষ্ট।

হাটেনিতো সেই রাস্তাতে একা,
টেনে নিয়ে গেছে সাথে।
বরে নিয়ে তারে হেরেছি আমিও,
আলোহীনা কোনো রাতে।

সারাটি জনম সাথে নিয়ে তারে,
ভেবেছি যে পাবো সুখ।
সুখ নাশী সেই সত্ত্বাই মোরে,
সুখ কেরে দিল দুখ।

শুধায় সবাই কোনবা সেজন,
যার কথার এত দাম।
দাম্ভিকতা ছিল যে আমার,
প্রিয়তমেষুর নাম।

ধরেছিলেম আমি হাতটি যে তার,
বাকি সব হাত ছেড়ে।
তুলতে চেয়েছি তারে প্রতিবার,
নিজেই যে গেছি পড়ে।

দম্ভ নামী সেই প্রেয়সী,
ভেঙে মোরে প্রতিবার।
অহংকারেই ডুবালো আমায়,
দাম্ভিক হুংকার।