ওহে রমণী! কেন যে ছেড়ে গেলে আমায়
আজও বুঝতে পারিনি ।
আসবে বলেছিলে সেদিন,
এসেছ ঠিকি, গেলে আবার চলে।
তুমি জানো কি?
আজও অপেক্ষারত আমার একগুচ্ছ পঞ্চ রক্ত-গোলাপ!
সেই পঞ্চ রক্ত-গোলাপ,
পাশে সেই ঝরে থাকা লোহিত-বর্ণ যুক্ত তিন ফোটা রক্ত বিন্দু।
যা শুধু তোমায় পাবার আশাহত,
তোমার ফিরে আসার প্রহর আজও তাদের অবিরত।
কী জানি কেন যে শুনলে তুমি সেদিন
অন্য লোকের ফুসমন্তর।
জানি আমি, জানে আমার-তোমার সাক্ষী রাখা
ধ্রুব, মিত্র, নক্ত, মৃত্তিকা,
আমার কোন দোষ ছিল না।

হ্যা সত্যি!
বিশ্বাস করো আমার কোন দোষ ছিল না।
আমি আজ পরলোকে, তাতে কোন দুঃখ নেই!
কেননা ইহলোকে তুমি একদিন গমন করবে
সেদিন না হয় বুঝবে---
আসলে আমার কোন দোষ ছিল না।
আমার মত সেদিনের সেই বেঞ্চিটার উপর ফেলে রাখা
পঞ্চ রক্ত-গোলাপও।
আজ আর সেই পঞ্চ-গোলাপ গুলো রক্ত-বর্ণ নেই।
পাশে তরতাজা তিন ফোটা লোহিত-বর্ণ বিন্দু
আজ আর নেই, শুকিয়ে গেছে।
শুধু আমার স্বপ্ন টুকু বেঁচে আছে।
তোমায় সত্য টা বলার স্বপ্ন।
অপেক্ষার পালা আর বেশি দেরি নেই,
তুমি আসবে, আবার একবার আমার সত্য টুকু জানবে।
সেদিনের মৃত---
পঞ্চ রক্ত-গোলাপ, আর তিন ফোটা রক্ত বিন্দু গ্রহণ করবেই।
সত্যিকারে না হোক অন্তত সেদিনের মুহূর্ত টুকু।
অপেক্ষারত রইলাম।