মা-মাগো!!
দূর দেশেতে পাড়ি জমিয়ে
তোমার স্নেহ-মমতা হারিয়ে,
এলাম এ কোন দেশে?
রোজ তোমার বুক ফাটানো কান্না
আছড়ে দেয় স্বপনে এসে,
হইত তুমি শুনতে পাও আমার কান্নাও
তাইতো সূক্ষ্ম জলকণা'ই তোমার আখিও যাই ভেসে।

জানো মা...??
আমি অনেক সুখে আছি।
নিজ হাতে যখন আহার করি,
তোমায় ভোলানোর স্পৃহা বৃথা ভেবে
ইলাহি'রে ডাকি প্রাণ ভরি।
তবু অজান্তে খামচে ধরে নয়নের জোড়া-পলক দুটো
গলগল করে ভাসাই লোচন, ভ্রু করে ফুটো।

ভেবো না মা তোমার ছেলে নেই আর আয়াসে
অভাবের বাধ ভেঙ্গেছে আজ ক্লান্তিকর প্রয়াসে,
ভূ তবু নিধন আমার তরে-
যতক্ষণ পাইনা আমি; আবার তোমারে পাশে।