বাংলা মায়ের সন্তান তোরা
ঘুমাসনে আজ আর।
ভোরের রবি ডাকছে তোরে
দেখ খোলে তাই দ্বার।
কাননে ফুল ফুটছে বলে
বাতাস আনছে ঘ্রাণ।
মৌমাছি সব জুটছে আসি
নাচিছে তাই প্রাণ।
আষাঢ় মাসে বাংলাদেশে
উঠছে অনেক ঢেউ।
আজকে তোরা ঘুমিয়ে হেথা
থাকিস নে তাই কেউ।
এখনো দেখ লুকিয়ে আছে
হেথায় যে দস্যু কত।
তোদের ধন নিচ্ছে কেড়ে
নিত্যই আগের মত।
ঘুমের ঘোরে থাকবি কত
জাগনারে তাই সব।
বাংলার জয় হবে যে আজ
সব উঠেছে রব।
কাটবি যে তোর সোনার ফসল
ভরবি গোলায় ধান।
মায়ের বুকে আবার সুখে
গাইবি যে তুই গান।
ভাবিসনে তুই ঘুমের ঘোরে
সে বাধন গেছে টুটি।
ঐ দস্যুরা সব লুকিয়ে আছে
নেয়নি আজও ছুটি ।
হেথা মুখোশ পড়ে আছে শত
মীর-জাফরের দল।
মায়ের কোলেই থাকছে তারা
করছে আবার ছল ।
তোদের ভাগ্য লয়ে করছে খেলা
তারই যে বার বার।
জেগে দেখ না চোখ খোলে তোর
এদের কি কারবার ।
জানিস না তুই মায়ের চোখের
অশ্রু গেছে শুকে।
কত কাঁদবে সে আর
অনেক বেদনা বুকে।
সে দিন যখন নিতে চাইলো কেড়ে
আমার মুখের ভাষা।
মায়ের বুকে প্রাণ দিয়েছে ভাই
আমার মিটাতে আশা।
ঘুমাসনে তাই আজকে তোরা
মায়ের অনেক শোক।
মিটিয়ে দেনা তার বেদনা
জুরিয়ে যাকনা বুক।