আজ-,
দূর হতে দূর দূরান্তরে
যাই না কেন তিপান্তরে,
বুক ফুলিয়ে বলবো আমি
“বাংলা আমার মা” ।।
আমার
বিশ্ব মাঝে নানান কাজে
সমানে ওই সবার তাজে,
ছড়িয়ে আছে তাহার ওগো
রূপের মহিমা ।।

ও সেই-
এমন রূপের- মধ্যখানি,
‘সকল ধরার সকল বাণী’!
‘সকল সেরা’ আমাদের ওই-
জ্ঞানের গরিমাতে ।।
তাহার
নদী-নদের জলের ধারা
করল আমায় পাগল-পারা,
নিত্য যে তাই, নৃত্য দেখি-
নানান ভঙ্গিমাতে ।।

তাহার
সবুজ সবুজ চারিপাশ-,
তলায় এমন নরম ঘাস,
দোলায় এমন সকাল সাঁঝে
মন ভুলিয়ে দেয় ।।
তাহার
পাখ-পাখালি, গাছ-গাছালির,
মন মাতানো ফুল-রঙালির-
রঙের ছটায়, ওঠায় ঢেউ-,
কনকনিয়ে দেয় ।।

তাহার
কোয়েল পাখির কুহুক সুর,
কাশের বনের মেঘ-রোদ্দুর
আঁকায় এমন চিত্রপটে-,
বিম্ব মেলে না ।।
তাই
পন করেছি মনের কোণে
থাকবো চির তোমার সনে,
ও মা তোমায় কোনোদিনই
ছেড়েই যাবো না ।।