এ জগৎ সংসারে ভালো মানুষের
খুব অভাব,
স্বার্থের প্রয়োজনে কাছে আসে
এই হলো মানুষের স্বভাব।
যতো পায় ততো চায় আরো
ধনবানে ঈশ্বরিক সুখ লাভ;
বল বন্ধু-প্রকৃত মানুষ বলি কারে?
যে নাহি চায় নিজের সুখ,
পরের দুঃখে দুঃখিত হয় সেইজন তারে।
যে থাকে সর্বদা কুশল কার্যে সদা হাস্যমুখ;
সে নাহি চায় আপন-সুখ!
নাহি চায় ধন, স্বর্গের বন- উপবন।
নাহি চায় রাজপদ, স্বার্থহীনভাবে
আত্মবলিদান বিসর্জন দেয় যেজন,
পরের হিতে প্রেমলাভ যাঁর সেই হয়
অশ্রুজলে নিজ পরিজন।
আপন সিংহাসনের আশা করে না যে,
অল্প হিতে সন্তোষের সঙ্গে বাস করে মন।
আত্মার সহিত সকলকে সমতুল্য ভাবে যেজন,
শত্রুকে মিত্র ভেবে আপন করে নিতে পারে সেইজন।
পৃথিবীতে সব মানুষকে এক পাল্লায় সে গুণে;
হিন্দু,মুসলিম,বৌদ্ধ, খৃষ্টান, জ্ঞাতি ভাই,ভেদাভেদ নাহি তার মনে।
মনের ভেতর নাহি তার হিংস্রা,বিদ্বেষ, নাহি অভিমানী;
তাহার অন্তরে বাস করে মহত্ত্বের বাণী।
মিথ্যার বশীভূতে পরের ক্ষতি করতে 
সে নাহি জানে,
সত্যের কানুনে সুন্দরের পথ মেনে সে চলে।