আপনি , আমার জন্মদাতা পিতা
দারুন একটা ভীতিকর কারন হয়ে
সর্বক্ষণ করতেন বিরাজ আমার মাঝে
আপনি আমায় নিয়ে হেথায় হোথায় বাজারে
যেতেন নিত্যদিন,সরতে লাগল ভীতির পর্দা
কি আশ্চর্য ! আপনি আর বসছেননা নিরাপদ ঘোষে
খাচ্ছেন না মিষ্টি কিনছেননা দই সন্দেশ ।
আমায় নিয়ে বসলেন লেবারদের খাবার দোকানে
খেলেন রসমালাই আর আমায় খাওয়ালেন , অবাক আমি
আরও অবাক করে আমার হাতের উপর রেখে হাত
কোমল স্বরে বললেন মিষ্টির কথা তোর মাকে বলবি না
সাক্ষাৎ বাঘ আপনি আর এই কথা বলব বাসায় , ছিঃ !
বইয়ের দোকানে বসে আমায় উঠিয়ে দিল রিকশায় ওরা
আপনি ভুল করে চার আনার জায়গায় আট আনা দিলেন
জিজ্ঞাসু চোখে তাকিয়ে, আপনি মৃদু হেসে বললেন তুই নিস।
জীবনে দ্বিতীয় দফা হাসি দেখলাম আপনার মুখে
আহা খাব বাদাম চারদিন চারআনা দিয়ে , হটাত এলো মনে
আপনি খেলেন নিষিদ্ধ মিষ্টি , আমায়ও খাওয়ালেন , দিলেন ধরিয়ে
চারআনা যাতে না করি ফাস আপনার গোপন আহার অভ্যাস ।
গেল উনপঞ্চাশ বছর পিতাহারা আমি বলিনি মাকে তার জীবদ্দশায়
মিষ্টি আর চার আনার গোপন সে খবর এতো অবিশ্বাসী নই আমি
কিন্তু আব্বাজান আমিও খাচ্ছি মিষ্টি লুকিয়ে আপনার শেখানো পথে ।।