বাবার কঠিন শাসনে তটস্থ থাকলেও তা ছিল শুধু পড়া শুনা আর আদব কায়দার জন্য । এখন এসে বুঝি সন্তানদের জীবনে বাবা থাকার কি অতিআবশ্যিক প্রয়োজন , প্রয়োজন তাকে সঙ্গ দেবার ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
গল্প/কবিতা: ৬৪টি

সমন্বিত স্কোর

৩.২

বিচারক স্কোরঃ ১.৪ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৮ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - বাবা (জুন ২০১৯)

আব্বাজান
বাবা

সংখ্যা

মোট ভোট প্রাপ্ত পয়েন্ট ৩.২

শাহ আজিজ

comment ৮  favorite ০  import_contacts ১৮২
আপনি , আমার জন্মদাতা পিতা
দারুন একটা ভীতিকর কারন হয়ে
সর্বক্ষণ করতেন বিরাজ আমার মাঝে
আপনি আমায় নিয়ে হেথায় হোথায় বাজারে
যেতেন নিত্যদিন,সরতে লাগল ভীতির পর্দা
কি আশ্চর্য ! আপনি আর বসছেননা নিরাপদ ঘোষে
খাচ্ছেন না মিষ্টি কিনছেননা দই সন্দেশ ।
আমায় নিয়ে বসলেন লেবারদের খাবার দোকানে
খেলেন রসমালাই আর আমায় খাওয়ালেন , অবাক আমি
আরও অবাক করে আমার হাতের উপর রেখে হাত
কোমল স্বরে বললেন মিষ্টির কথা তোর মাকে বলবি না
সাক্ষাৎ বাঘ আপনি আর এই কথা বলব বাসায় , ছিঃ !
বইয়ের দোকানে বসে আমায় উঠিয়ে দিল রিকশায় ওরা
আপনি ভুল করে চার আনার জায়গায় আট আনা দিলেন
জিজ্ঞাসু চোখে তাকিয়ে, আপনি মৃদু হেসে বললেন তুই নিস।
জীবনে দ্বিতীয় দফা হাসি দেখলাম আপনার মুখে
আহা খাব বাদাম চারদিন চারআনা দিয়ে , হটাত এলো মনে
আপনি খেলেন নিষিদ্ধ মিষ্টি , আমায়ও খাওয়ালেন , দিলেন ধরিয়ে
চারআনা যাতে না করি ফাস আপনার গোপন আহার অভ্যাস ।
গেল উনপঞ্চাশ বছর পিতাহারা আমি বলিনি মাকে তার জীবদ্দশায়
মিষ্টি আর চার আনার গোপন সে খবর এতো অবিশ্বাসী নই আমি
কিন্তু আব্বাজান আমিও খাচ্ছি মিষ্টি লুকিয়ে আপনার শেখানো পথে ।।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement