আঁধারেই জেগে ওঠে সব ব্যাথা , বেদনা, সুখ , জীবনের সব কথা । বোধকরি কেউই পায়না দেখতে হারানো ব্যাথার মোচড় দেওয়া যন্ত্রনা, কারন চারিদিক আঁধারে আচ্ছন্ন ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
গল্প/কবিতা: ৫৭টি

সমন্বিত স্কোর

৪.১৪

বিচারক স্কোরঃ ১.৯৪ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.২ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - আঁধার (সেপ্টেম্বর ২০১৮)

শুক্লপক্ষের চাঁদ
আঁধার

সংখ্যা

মোট ভোট ১১ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.১৪

শাহ আজিজ

comment ১৮  favorite ১  import_contacts ১৮৯
এ রকম শুক্লপক্ষের আঁধার নামলেই
আমি ঝাঁপিয়ে পড়তাম তোর ওপর
নষ্ট, এলোমেলো করতাম তোর ওষ্ঠরঞ্জনী
পুজোর দিনগুলোতে সেই কত আগে ।
তোর সাধের আঁকা যত্নের সিঁদুর টিপ
কি আশ্চর্য হয়ে আমার সারামুখে ছড়িয়ে যেত
তুই কাঁদতি , আঁধারে ক্রন্দনের শব্দ শোনা যায়
আঁধারে যায়না দেখা ফষ্টিনষ্টি আর নয়নবারির ধারা
পুজোর রাতগুলো অসম্ভব উদ্দীপনা আর উত্তেজনায় ভরপুর ছিল
চারযুগ আগে চুপিচুপি চলে গেলি কণিকা
চিতায় চড়ে চন্দন কাঠ আর ঘৃত সমাহারে
আমি নদীতীরে বসে স্তব্ধ হয়ে দেখেছিলাম
আমার কণিকা ক্রমশঃ বিলীন হল অগ্নিদেবতার কাছে।
কেউ একজন আঁধারে দারুর হাড়ি ধরিয়ে দিল, আহা !
সব দুঃখ আর বেদনার উপশম পেটে চালান করে
বাঁশিতে ইমনের সুর তুললাম চারপাশে ঘিরে স্বজন ।
জানিস কণিকা ! ওরকম আঁধার ফিরে ফিরে আসে
আমি জেগে থাকি অলিন্দ দিয়ে আকাশপানে তারা দেখে
সিঁদুরহীন , ওষ্ঠরঞ্জনীবিহীন এ জীবন আঁধারেই কাটুকনা
কি বলিস ???

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement