স্বাধীনতা তুমি,
সাধারনের কণ্ঠে ধ্বনিত মুক্তির গান;
স্বাধীনতা তুমি,
শাষণ-শোষণ অত্যাচারের অবসান।
স্বাধীনতা তুমি,
অজস্র শ্রোতার সম্মুখে কবির রুঢকণ্ঠে আবৃতি করা কবিতার পঙক্তি।
- "এবারের সংরাম স্বাধীনতার সংরাম।
এবারের সংরাম মুক্তির সংরাম...."
স্বাধীনতা তুমি,
লক্ষ প্রাণের রক্তে অর্জিত বাঙ্গালী জাতির চিরমুক্তি।
স্বাধীনতা তুমি,
পদ্মা,মেঘনা যমুনার জলে তাজা রক্তের মিশ্রণ;
ওদের কাছ থেকে কেড়ে এনেছি তোমায় মোরা দূর করেছি শোষণ।

হে স্বাধীনতা,
তুমি আছ বলে বিশ্বদ্বারে মাথা উঁচু করে
আছি মোরা দাড়িয়ে;
ফের দিতে হয় দেব প্রাণ, তবু গাইব তব গান;
কভু তব সম্মান, মোরা হতে দেব না ম্লান;
যেতে দেবনা তোমায় হারিয়ে।
কোটি জনতার বুকে লাল-সাবুজ চাদর মুড়িয়ে রয়েছ তুমি জড়িয়ে।
তব পরশে ধন্য মোরা তাই গাই তব গান;
তুমি মোদের প্রাণে, কাব্য-কবিতা গানে;
চিরকাল রবে অম্লান।