মায়ের পায়ের ধুলো
মিশে আছে এই দেশে
চমকে থমকে গেল পা,
মমতা মেশানো মাটি
সেতো আমারই যেন মা ।

তারই স্মৃতি ঘেরা
এ জগৎ সংসারে
খুঁজে পাই তারই পরশ,
তার কোমল হৃদয় জুড়ে
থেকেছি পরম আস্থায় ।

চলে গেলে অনন্ত-লোকে
আমাকে একা ফেলে
এ বিশ্ব চরাচরে,
যেথা নেই প্রেম-কোমলতা
আছে শুধু খাঁ খাঁ করা শুণ্যতা !

কুয়াশার অস্পষ্ট বেশে
মিশে আছে ধোঁয়াশার লাশে
প্রেমহীন মানুষের কঙ্কাল !
ওরা অনির্মল বসুধার
অরণ্যচারী, ঘৃণিত জঞ্জাল !

ওরা অনর্গল অসত্য বলে
দীপালীর আলোর ঘোরে
নিজের ছায়াতে পায় লাজ !
নিন্দিত নরকে বসে
নিত্য অহমিকা করে যায় চাষ !

সাধ জাগে অতৃপ্ত মনে
হৃদয় টা ছুঁয়ে দিতে
নিশ্চিন্তে নির্ভাবনায়,
মা, তোমাকে মনে পড়ে
চরম ক্রান্তিকালে এই অবেলায় ।