একুশ তুমি চৈতী দিনের
তাজা রক্ত ঝরা!
রাজপথে দামাল ছেলের
লাশ লুটিয়ে পড়া।

একুশ তুমি ছেলেহারা
মলিন মায়ের মুখ,
বৃদ্ধ বাবার দীর্ঘশ্বাসে
কষ্টে ভরা বুক।

একুশ তুমি রক্ত দিয়েে
একটি ভাষা কেনা!
বিশ্বতরে নতুন রূপে
বাংলাভাষা চেনা।

একুশ তুমি মাতৃভাষায়
মুক্ত কথা বলা,
পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙ্গে
স্বাধীনভাবে চলা।

একুশ তুমি মায়ের মুখে
মধুর সুরে ডাকা,
বোনের হাতে লাল কলমে
রঙিন ছবি আঁকা।

একুশ তুমি নির্মল বাতাস
নিঃশ্বাসে প্রাণ ভরা,
খোকা-খুকুর পাঠ্য বইয়ে
অ আ ই ঈ পড়া।

একুশ তুমি সকল দেশের
সকল জাতির ভাষা,
কুর্নিশ আজ তোমার তরে
জানাই ভালোবাসা।

একুশ রবে স্মৃতির পাতায়
চির অম্লান,
দামার ছেলে জীবন দিয়ে
রাখলো মায়ের মান।