তোমার বুকে মাথা রেখে শুয়ে থাকা আমার ডানপিটে দিনগুলো,
আজ কত দূরত্ব এ পারের বয়ে চলার ষ্টেশনগুলোতে-হুলস্থূল ভিড়ে
তোমার হাতে বাঁধাই করা আমার ছেলেবেলার বইয়ের খোঁজে,
তোমার আনা দেয়াল ঘড়িটার নিরবচ্ছিন্ন স্রোত- আমাকে ভীত করেনা
মেঘের উপর চান্নি হাতে হাটতে তুমিই শিখেয়েছিলে-
কোন এক চাতক পাখির সাথে।

তোমার যতা দুঃখ আর গ্লানিমুক্তির জন্যে তুমি আমায় জন্ম দিয়েছিলে,
এ সংসারের বেদখল উৎকণ্ঠায় বরাবরই আমার ললাটে রাজ তিলক
দেখার আজন্ম গোপন ইচ্ছে,
দেখিলে না,দেখিতে পারিলে না-জানিতে পারিলেনা তোমার আধুনিক
ছেলেটি তোমার জন্যে বৃদ্ধাশ্রমের কথা একটি মুহূর্তের জন্যে ও ভাবেনি !
চারপাশে এত কোলাহল-মধুরতা-বিশালতা,তুমি ছাড়া মনে বিন্দুমাত্র সাড়া দেয় না,
আমার সঞ্চিত স্বপ্নের মাঝি- বাবা- তুমি নেই !
জীবনের মহাসংকটে,প্রভু-অর্থের মহান মিছিলে একটি বুলেটের ভয়ে,
বাবা তোমার পূণ্যময় দুটি হাতের স্পর্শ পেতে বড় বেশি ইচ্ছে করে !