রাজন নামের সেই ছেলেটি আজ আর নেই,
হারিয়ে গেছে আমাদের মাঝ থেকে।
হাজারো ব্যাথা বুকে নিয়ে ছেড়েছে এ ধরনী,
পৃথিবীর বুকে প্রশ্ন রেখে।

পায়ে ধরে কেঁদেছিল আর মেরো না আমায়,
দোহাই লাগে তোমাদের।
সইতে যে পারছি না অসহ্য ব্যাথা আর,
শক্ত লাঠির আঘাতের।

পশুদের কাছে চেয়েছিল এক ফোঁটা জল,
দেয়নি তার কথার দাম।
আঘাতে আঘাতে করেছে ক্ষত বিক্ষত তাকে,
খেতে বলেছিল তার শরীরের ঘাম।

চোখের জলে ভিজেছিল তার ছোট্র মুখখানি,
বুকের ভিতর আর্তনাদের হাহাকার।
হাতে পায়ে ধরে লুটিয়ে পড়েছিল সোনার দেহ,
ক্ষমা চেয়েছিল বারবার।

ছোট্র এই অবুঝ শিশুর জীবনে কি ছিল পাপ,
হারাতে হল তার প্রান?
মনুষ্যত্ব বলে রইল না আর কিছু এ পৃথিবীতে,
থেকে গেল সেই প্রশ্নের অবসান।