ময়নাযে মা হবে, কিন্তু বাবা তার কে?
সারা বাড়ী, সারা পাড়া,আর সারা গ্রাম তোলপাড়,
কলঙ্ক চারিদিকে,অপবাদ অপমান আর গঞ্জনার
অসহ্য ভার মা ময়নার কাঁধে ।

অনাগত শিশুর একজন বাবা আছে কিন্তু পরিচয় নেই,
আদিম লালসার নষ্ট উন্মাদনায় যে শিশুর জন্ম তার
পরিচয় দেবার সাহস ও শক্তি সে বাবার নেই কেননা
তথাকথিত নিয়ম ভঙ্গের দায় সে নেবেনা।

অবশেষে বাধ্য সে গর্বিত পুরুষ নিতে দায়ভার কিন্তু
দিলনা বাবার অধিকার; তাই পেলনা নিষ্পাপ শিশুটি
বাবার স্নেহের ছায়া আর ভালবাসা-আদর, শুধু মায়ের
আঁচল ধরে বেড়ে উঠল অযাচিত অপবাদ নিয়ে।

জারজ নামের অপবাদ সিক্ত শিশুটি ধীরে ধীরে চিনতে
শুরু করেছে জটিল আর মনগড়া সমাজের নানা অলি গলি,
বুঝতে শুরু করেছে তার নষ্ট জন্মের ইতিহাস, তাই লজ্জা
আর কষ্ট অবনত করে শির তার যখন তখন ।

জেনেছে কে তার বাবা কিন্তু অধিকার নেই বাবা ডাকার,
পারেনা সবার মত উচ্ছ্বসিত আবেগে বাবাকে জড়িয়ে
ধরে কোন আবদার করতে, পারেনা বাবার স্নেহ মাখা
হাত ধরে প্রিয় এ পৃথিবীর পথ চলতে।

সমাজ ধর্মের ঊর্ধ্বের এ সম্পর্ক নিতান্তই মূল্যহীন,
মূল্যহীন এক নিরপরাধ মানব সন্তানের আবেগ আর
অধিকার কিন্তু মূল্যহীন নয় অমূল্য জীবন। তারপরেও
অপূর্ণতা আর অপবাদের মাঝে খুঁজে ফেরে সে সুখ।