প্রস্তর এর নির্যাস থেকে প্রণীত শৈবালে
ধ্বনিত মোর , প্রথম স্পন্দন
বিষের তীব্র জ্বালাতে , কখনও নীল
কখনও বা জড় , কখনও ভাঙ্গা বা গড়ার
ভিতর দিয়ে যাওয়া।
কার্বন এর সাতনরি বিন্ন্যাসে সজ্জিত ,
অণুতে অণুতে নিয়ে যুগের বার্তা-
হই নন্দিত হই স্পন্দিত ।
আপন অস্তিত্ব কে রঞ্জিত করে ,
নিজ প্রাণসুধা বিলীন করে
কখনও বা স্থির বা সচল হয়ে ।
আমার অস্তিত্বে জানি না, জগত মেতেছিল কিনা
আবির্ভাবে মোর বেজেছিল কিনা বিশ্ববীণা-
সজ্জিত হয়ে প্রবাল এর ন্যায় , কালাকাশ মাঝে
প্রকৃতি রেখায় ফেলে রাখি নিজের কায়া ,
রচনা করি , নির্মাণ করি , করি বিনাশ ও
সয়ে যাই সকল প্রলয়-শিখা ,
এরপরেও অজানা রয়
এরপরেও রয় অন্ধকার ,
জানিনা কিসে মোর সৃষ্টি । কে মোর বিধাতা
জানা নাই কোন আলেখ্য
তবুও বয়ে চলি সময় এর মাঝে ,
নিয়ে বেদনা অব্যক্ত ।