হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রমে সমাজ ও রাষ্ট্র গড়ি
নিশিত শর্বরে ক্লান্ত হয়ে শুয়ে পড়ি,
চিন্তায় আসেনা ঘুম কাটেনা রাত
সকালের নাস্তায় জুটেনা পান্তা ভাত।

টিপটিপ চোখে ছনের ঘরের মাঝে
দেখি কখন ঘড়িতে ছ’টা বাজে,
সারা দিন মাঠে-ঘাটে কত শতকাজ
প্রখর রোদে মাথায় পড়ে যেন বাজ।

গাদার খাটুনি কিন্তু পাইনা শ্রমের দাম
আমরা পাই কষ্ট আর মালিকরা কামায় নাম,
অবিরাম শ্রমে শ্রমিকের মাথার ঘাম পায়ে
তবুও সংসারে আসে না শান্তি অল্প আয়ে।

নিদারুণ অত্যাচার-লাঞ্ছনা নিত্য দিনের সঙ্গী
আর ভালোলাগে না বড়লোকের ভাব-ভঙ্গী,
বাঁচার তাগিদে অসহ্য যন্ত্রনাসহ্য করি
যদি একদিন ফিরে আসে সোনারতরী।

সেদিন আমি গাইবো ‘উই সেল ওভারকাম’
শরীর থেকে ঝড়বে না আর লবণাক্ত ঘাম,
সাফল্যের কেতন উড়াবো ঐ গগনে
সুখের পায়রা ছুটবে আমার লগ্নে।