মা, মাগো,তুমি কোথায়
গভীর মমতায় আজ মনে পড়ে যায়,
দশমাস-দশ দিন,গর্ভে ধারণ করে
আমি ব্যথা পাবো বলে সেই বৈশাখী ঝড়ে
কখনো অসতর্ক হয়েও, যাওনি পড়ে।

মা, মাগো, আজ বড্ড মনে পড়ে
তুমি ভিজা বিছানায় শুয়ে
শুষ্ক বিছানায় আদরে ঘুম পাড়িয়ে দিতে,
কত শত দুষ্টুমি জ্বালাতনে
কখনো ভুলোনি কোলে তুলে নিতে।

মা, মাগো, ঘুমতো আসেনা তোমার
সেই ঘুম পাড়ানির গান ছাড়া,
আমার জন্য তোমার গানে জেগে থাকতো পাড়া,
“খোকা ঘুমালো পাড়া জুড়ালো বর্গী এলো দেশে
বুলবুলিতে ধান খেয়েছে, খাজনা দিবো কিসে?”

মা, মাগো, আজ চিত্তে বড় ব্যথা
যখন মনে পড়ে তোমার কথা,
জীবিকার তাগিদে ব্যস্ততার বাতায়নে
তোমার আদর-সোহাগ থেকে দূরে থাকি
তুমি ভেবোনামা, দিচ্ছি তোমায়ফাঁকি।

মা, মাগো, তোমায় অনেক যন্ত্রণা দিয়েছি
তবুও তোমার আদর-সোহাগ পেয়েছি,
দুষ্টুমি শেষে চুপিসারে ফিরেছি যখন রাতে
আঁচল দিয়ে ঘাম মুছিয়ে ধরতে আমার হাতে,
বলতে, খোকা মারামারি করবি না কারো সাথে।

মা, মাগো, অনেক কষ্ট হয় তোমায় ভেবে
জানি তুমি ক্ষমা করে দিবে, সেই ছোট্ট বেলার মতো,
কখন আসবে খোকা, দিবে না তোমায় ধোঁকা
ঝাপসা চোখে আজও পথ চেয়ে বসে আছো,
মা, আমি চাই, তুমি শত-সহস্র বছর বাঁচো।