তোমার সবকিছু কেমন ঘোরলাগা
সন্ধ্যায় অস্তমিত সূর্যের আলোকছটার মত।
কখন ও লাল, বেগুনী , নীল কিংবা অন্য কোন রং
মাদকতাময় আবেশী ঘ্রাণ , কখনো কাছে ডাকে , কখনো পিছু ছুটি
ভুলে জাতি-জাত বৈষম্য সব।


তোমার সব অচেনা মনে হয়
দূরের পথের একাকী পথিকের মত, ক্লান্ত এবং অবসাদ গ্রস্ত।
অধরে তোমার হাসি মুহরতে মুহরতে রং বদলায়
তার কিছু চেনা , আর অনেকটাই অচেনা রয়ে যায়
ভাবনার মাথা চেপে ধরে ফের ছুটি তোমার পিছু।


তোমার কথার কতটুকু মুল্য আছে আমি জানিনা
গ্রীষ্মের রোদেলা দুপুরে এক পশলা বৃষ্টির পর শুকনো জমিন
থেকে যে তাপ বেরোয় , তারচেয়ে কম কিসে তুমি বল?
দগ্ধ হয়ে প্রতিনিয়ত তোমারি পাশে দাঁড়াই, বুঝি এবার সব ঠিক হবে
আবার ফিরে পাব শান্তিময় জীবন।


গভীর রাতে দুঃস্বপ্ন দেখে জেগে উঠলে যেমন লাগে ভয়
তোমার সাথে একসাথে থাকতে আমার তেমন মনে হয় ।
শুকনো পাতার পতনের ক্ষীণ শব্দে আমি ভয় পাই , তোমার বাড়ানো হাতের স্পর্শ
আমার কষ্ট কে আরো বাড়িয়ে দেয়, এরপর ও আমি চুপ থাকি
লোকলজ্জার ভয়ে , তুমি যে পথে গিয়েছ চলে,
সাধ্য কি আমার ফিরিয়ে আনি তোমায়।


রাতের পর রাত তুমি অবহেলায় ঠেলে দিয়েছ মোর ভালোবাসার হাত
তুমি তখন আমায় তৃপ্ত নয় , তৃপ্ত তুমি অন্য কোন মোহে
একে তো মোহই বলে জেসমিন, সংসার বাস্তবতাকে ভুলে
যে সুখের পেছনে তোমার ছুটে চলা তা কি সঠিক পথ
জিজ্ঞেস কর দেখ নিজের বিবেকের কাছে ।
আসলেই তোমাকে জানা হল না এই জনমে আমার ।