তোমাদের এই ধূসর পৃথিবী আমার ভালো লাগে না

আকাশের ওই শুভ্র রঙধনু... সেতো ছলনার মায়াজাল

তাই ভালোবাসার শপথ নেবার আবেগ জাগে না।

 

রুপালী চাঁদের পাঁজর জুড়ে ধরেছে ঘুণের বাসা  

জ্যোৎস্নার অভিমানী আলোক ছটা...ছায়াপথের গোলক ধাঁধায়    

হারিয়েছে সেই কবে !

দখিনা বাতাসে ভাসে কালো মেঘের মাতাল প্রেম! 

কোমলতায় গড়া নিষ্পাপ আমি..হৃদয় অমূল্য দামি

যদি আঘাত পাই তবে?  

 

নিরেট পাহাড়ের নীলাভ অশ্রু ...সেতো তোমাদের

প্রাণহীন সুখের নীরব ঝর্না !

দেখতে তোমরা পাওনা ...দেখতে তোমরা চাওনা !

 

গোলাপ কলির আঁখি কোনে শুকিয়ে শিশির কণা  

এঁকেছে বেদনার রক্তিম আল্পনা! 

স্বপ্ন-হীন সৈকতে...তামাটে সমুদ্র করে চীৎকার

শুকনো পাতার চিবুক বেয়ে নীল কান্না ছড়ায় আঁধার! 

 

তবুও তোমাদের হৃদয় মরুতে অনুতাপের

এক ফোঁটা বৃষ্টি ঝরে না-

মুখোশের উপর জমানো নকল সুখের খোলস ভেঙ্গে

স্বর্গ সুধার কথা মনে পড়ে না–

 

আমি কোমল প্রজাপতি ...কাঁটার আঘাত সইতে না পারি-

ধূসর পৃথিবী...পাথর হৃদয়...বুকের ভেতর বইতে না পারি-