বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।
Photo
জন্মদিন: ৬ জুন ১৯৮২

Derek Walcott এর কবিতা ‘Love After Love’

  • advertisement

     

    শৈশবে পিতাকে হারিয়ে অনেক কষ্টের মধ্যে বড় হন কবি Derek Walcott। মাত্র ১৮ বছর বয়স থেকে কবিতা লেখা শুরু করেন। ২৫ টি কবিতা দিয়ে উনার কবি জীবনের যাত্রা শুরু হয়। এরপর আর পেছনে তাকাতে হয় নি। এখনও লিখে যাচ্ছেন। খ্যাতির শীর্ষ স্বীকৃতি নোবেল সাহিত্য পুরস্কার জিতে নিয়েছেন ১৯৯২ সালে এই কবি। উনার একটি জনপ্রিয় কবিতার ভাবানুবাদ নিচে দেয়া হল-

     

     

    Love After Love

     

    The time will come
    when, with elation
    you will greet yourself arriving
    at your own door, in your own mirror
    and each will smile at the other's welcome,
    and say, sit here. Eat.
    You will love again the stranger who was your self.
    Give wine. Give bread. Give back your heart
    to itself, to the stranger who has loved you
    all your life, whom you ignored
    for another, who knows you by heart.
    Take down the love letters from the bookshelf,
    the photographs, the desperate notes,
    peel your own image from the mirror.
    Sit. Feast on your life.

     

     

    সামান্য ভালোবাসা 

     

    বেশী দেরী নেই, এমন সময় আসবে

    যখন তুমি বরণ করে নিবে নিজেকেই!

    স্বাগত সম্ভাসন জানাবে স্বীয় আগমনে

    তোমার নিজের দুয়ারে, নিজেরই আয়নার সামনে

    পরস্পরকে দেখে হাসবে, জানাবে অভ্যর্থনা

    আর বলবে, কাছে এসো, একটু বসো, কিছু খেয়ে যাও!

    এটি ভালোবাসবে তুমি, কারণ এযে তুমি নিজেই।

    সামান্য শরবত! একটু রুটি! একটু আন্তরিক ভাবে চেয়েই দেখো না

    নিজেকে! নতুন আগন্তুকের কাছে, যে তোমাকে বড্ড ভালোবাসে

    সারাটা জীবন ধরে, যাকে তুমি দিয়েছো প্রবঞ্চনা অন্যের তরে,

    অথচ সে তোমাকে কত ভালো জানতো!

    বইয়ের তাক থেকে পুরানো চিঠিগুলো নামিয়ে দেখই না,

    সেই যে পুরানো ছবি, কিছু আগোছালো চিরকুট-

    পারলে তুমি তোমাকে তুলে নাও ঐ আয়না থেকে; তবুও

    একটু বসো। সামান্য ভালোবাসো তুমি নিজেকে।

     

advertisement

  • এফ, আই , জুয়েল
    এফ, আই , জুয়েল # মহান কবির দারুন লেখা । জীবনের জয়গান সুন্দর ভাবে ফুটে উঠেছে ।।
    প্রত্যুত্তর . ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
  • খন্দকার নাহিদ হোসেন
    খন্দকার নাহিদ হোসেন সুলিখিত অনুবাদ...সহমত। বড় সুন্দর।
    প্রত্যুত্তর . ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
  • রনীল
    রনীল মাথা নষ্ট হয়ে গেল। এতো অসাধারণ কবিতা হয়তো জীবনে পড়াই হতোনা যদিনা শাওন ভাই অনুবাদটি করতেন। যাকে তুমি দিয়েছো প্রবঞ্চনা অন্যের তরে- এখানে কি মানেটা দাঁড়াচ্ছে? নিজের সত্ত্বার কারনে অন্য মানুষের সাথে প্রবঞ্চনা করা? নিজেরই আয়নার সামনে/ পরস্পরকে দেখে হাসবে- এ জা...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
    • ড. জায়েদ বিন জাকির শাওন ঠিক বলেছ রনি! উনাদের কবিতা পরে আর অনুবাদ করে আমিও ভিশন আনন্দ পাচ্ছি!
      ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
    • ড. জায়েদ বিন জাকির শাওন রনি একটু ভুল হইসে! মানুষ অন্যের কারণে নিজের সাথেই প্রবঞ্চনা করা, যাকে তুমি দিয়েছ প্রবঞ্চনা অন্যের তরে, এখানে তুমি তা হলো লেখব অর্থাত আমি নিজেই, আর আমি নিজেই নিকেজে প্রবঞ্চনা করেছি অন্যের জন্য!
      ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১২