স্পেনের মাদ্রিদের প্রাদো জাদুঘর থেকে মোনালিসা চিত্রকর্মের একটি অনুলিপির সন্ধান পাওয়া গেছে। তবে এর শিল্পীর সন্ধান পাওয়া যায়নি। মনে করা হচ্ছে লেওনার্দো দ্য ভিঞ্চির আঁকা মোনালিসা চিত্রকর্মটি আর এই চিত্রকর্মটি একই সময়ে অঙ্কন করা হয়েছে।

এ চিত্রকর্মটি দেখে শিল্পপ্রেমীরা বিশ্বখ্যাত চিত্রকর্ম মোনালিসার মডেল প্রকৃতপক্ষে দেখতে কেমন ছিল তা জানতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে। জাদুঘর রক্ষণাবেক্ষণ কর্মীরা নতুন চিত্রকর্ম প্রতিস্থাপনের কাজ করার সময় চিত্রকর্মটির সন্ধান পান। তাঁরা জানান, চিত্রকর্মটি একটি কালো রঙের চিত্রকর্মের নিচ থেকে উদ্ধার করা হয়।

ধারণা করা হচ্ছে, এ চিত্রকর্মটি আসল মোনালিসা রেপ্লিকা। এ অনুলিপি চিত্রকর্মটি লেওনার্দো দ্য ভিঞ্চির আসল চিত্রকর্মটির ঠিক আরেক সংস্করণ। লেওনার্দো তাঁর আসল চিত্রকর্মে ল্যান্ডস্ক্যাপের মাধ্যমে মোনালিসা ও এর পটভূমির যে চিত্র অঙ্কন করেছিলেন, তার সবকিছুই এখানে বিদ্যমান। আর প্যারিসের ল্যুভর জাদুঘরে মোনালিসার যে চিত্রকর্মটি আছে, এটি ঠিক তারই প্রতিলিপি। চিত্রকর্মটিতে অনেক দিন ধরে পড়া ধুলোবালি অপসারণ এবং ফাটল বার্নিশে মাধ্যমে ঠিক করা হয়। এতে চিত্রকর্মটি জীবন্ত হয়ে ওঠে। আর তাঁকে দেখে মনে হয় যেন মোনালিসার তরুণী যমজ বোন।

লন্ডনের আর্ট গ্যালারির সিম্পোজিয়ামে চিত্রকর্মটির সন্ধান পাওয়ার খবর প্রকাশ করা হয় এবং আর্ট নিউজ পেপারের এক প্রতিবেদনে এ খবর প্রকাশ করা হয়। আর্ট নিউজ পেপার তাদের এক প্রতিবেদনে বলেছে, এ চিত্রকর্ম দেখে মনে হচ্ছে লেওনার্দো দ্য ভিঞ্চির আসল মোনালিসার চিত্রকর্ম এবং অনুলিপিটির কাজ একই সময়ে শুরু হয়েছে।
প্রাদো জাদুঘরের ইতালিয়ান গ্যালারির কিউরেটর মিগুয়েল ফ্যালোমির সংবাদ সম্মেলনে লেওনার্দো দ্য ভিঞ্চি ও অনুলিপি চিত্রকর্মটির শিল্পীর মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল বলে মনে করেন। তিনি মন্তব্য করে, শিল্পীটি তাঁর নিজের কর্মশিবিরেই চিত্রকর্মটি অঙ্কন করেন। এ চিত্রকর্মটি লেওনার্দো দ্য ভিঞ্চির মোনালিসার সঙ্গে পুরোপুরি সংগতিপূর্ণ। এতে লেওনার্দো কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করেননি বলে তিনি মন্তব্য করেন। এ মাসের শেষের দিকে চিত্রকর্মটি প্রাদো জাদুঘরে সবার জন্য উন্মুক্ত করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে। আর মার্চে এটি ল্যুভর জাদুঘরে প্রদর্শন করা হবে।

তথ্যসূত্র : সিএনএন। খবরটোয়েন্টিফোর.কম-এর সৌজন্যে।