ইচ্ছা হলেই আসতে পার।
তোমার মাথার সিথির মতো
আমার মধ্যবিত্ত ঘর হতে শুরু হয়ে
দিগন্তে মিশে যাওয়া সবুজ মেঠোপথ দিয়ে
ঘাসের উষ্ণ অভ্যর্থনা পেতে পেতে
ইচ্ছা হলেই আমার ঘরে আসতে পার।

ইচ্ছা হলেই সাজতে পার।
গ্রামে মেলা হতে কিনে আনা
আয়নার সামনে দাড়িয়ে
লেইস ফিতায় বাহারী ফুলের সমাহার
তোমার লম্বা বেণীতে গড়তেই পার।
তোমার আকাশসম কপালে
পূর্নিমার চাঁদ আনতেই পার।

ইচ্ছা হলেই সন্ধা নেমে এলে
সব আলো নিভে গেলে
তোমার চোখের আলোতে আলোকিত করতে পার
আমার অন্ধকার ঘর।
আমার সজ্জায় জ্বলা দেহে
দুফুটা জল ঢেলে আমার কামুক মনের আগুন
ইচ্ছা হলেই নেভাতে পার।

ইচ্ছা হলেই চলে যেতে পার
যেথায় যেতে চাও।
কেউ যদি চলে যেতে চায়
কেনো বাধা দিতে যাব!
ভবে এসেছ মুক্ত হয়ে
মুক্ত বিহঙ্গের মত
আকাশে মেলবে ডানা!
আমি কেনো পথের কাঁটা হয়ে
ফেরাতে চাইব তোমায়!
হাটতে বলব আমার পৃথিবীতে!

তোমার যেথা ইচ্ছে যাও
প্রতিটি দরজাও উন্মুক্ত করে রেখেছি তোমার জন্য।