অবাধ্য হয়েই তোমার হাতে রেখেছি একটি গোলাপ
ক্যাম্পাসের উত্তাল সময়কে একদিকে ঠেলে সযত্নে
টিফিনের অবসর কিংবা ক্লাসগ্যাপ থাকা সামান্য ক্ষন
সুখের ফানুসে ভেসে চলা রামু’দার ছোট্ট স্টলের ভাঙ্গা চেয়ার

দু’আঁখির বিদ্যমান প্রেমে ভেসেছি উম্মাতাল পারাবার
পেয়েছি অনন্ত সুখের ছোয়া সুকোমল পরশে নিত্যদিন
বুকের জমিন চষে বুনেছি ভালোবাসার বীজ অনন্ত
ভুলেছি দুরন্তপনার খেয়ালী সময়ের ব্যাস্ত আলাপন

এলোকেশের দোলায় বুকের অসীম সীমায় ঢেউ খেলেছে
রক্তের কনার বুঁদে বুঁদে তুমি শুধু তুমিই
মস্তিষ্কের শিরা গুলো সচল হয়ে গতি খুঁজে ছুটে আনমনে
তোমার অস্তিত্বের প্রেম আজো ফেরায় সর্বনাশের পথ থেকে।