লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২০ সেপ্টেম্বর ১৯৮৬
গল্প/কবিতা: ৯টি

সমন্বিত স্কোর

৫.১১

বিচারক স্কোরঃ ৩.৫৯ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৫২ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftসরলতা (অক্টোবর ২০১২)

স্রোতের বিপরীতে তুমি
সরলতা

সংখ্যা

মোট ভোট ১০১ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৫.১১

নৈশতরী

comment ৬১  favorite ৩  import_contacts ১,৯৬১
কোনো মধ্যরাতে পাড়-ভাঙ্গা নদীর কিনারে দাঁড়িয়ে দেখেছ
ক্ষেপে ওঠা নদীর ঢেউয়ে ভেসে যাওয়া কোনো জীবন্ত লাশ !
নদীর রহস্য জড়ানো অদ্ভুতুড়ে কান্নার সুরেরা,
কীভাবে মিশে যায় বিষণ্ণ আঁধারের অস্তিত্ব জুড়ে !
তুমি দেখনি প্রিয়তম। তুমি দেখনি-
এই পালিয়ে যাওয়া সময়ের কতই না চলে যাবার তাড়াহুড়া !

শুকনো কাঠের জ্বলে ওঠা লকলকে আগুনে-
ঘর পোড়া গৃহপতির পুড়ে যাওয়া দগ্ধ মন !
তুমি একবার বুঝলেই শীতল হয়ে যেত,
হিম-প্রবাহ এনে দিত এক-পসরা মধুর মহেন্দ্রক্ষণ ।
একবারও বুঝে দেখনি প্রিয়তম। তুমি বোঝনি-
কবির জীর্ণ অস্তিত্বে ঘুমিয়ে থাকা ছেলেমানুষি গুলো ।

আমার সরলতা নিয়ে বারেবার তুমি বাজি ধরেছ,
জুয়া খেলেছ এ মনকে নিয়ে পাকা বাজিগর সেজে !
অথচ আমি নিশ্চুপে সব মেনে নিয়েছি-
তোমার হেরে যাওয়া জয়ের প্রবল উল্লাস দেখে !
এত সহজে কবিকে ভেঙ্গে ফেলার সাহস- দুর্বোধ্য ! প্রিয়তম-
যা তুমি দেখাতে কালো হয়, আমি দেখি সাদারা দাঁড়িয়ে থাকে !

তবে আর সরলতা না, আজ তোমাকে আঁধার দেখাবো !
অমাবস্যা রাতের গহ্বরে ঘুমিয়ে থাকা কালো আঁধার !
গ্রহ নক্ষত্রহীন এক পৃথিবীর কয়েদ খানায়-
বন্দী থকা কিছু আঁধার এনে দেব তোমর হাতের মুঠোয় !
তুমি চিৎকার দিয়ে পালাতে চাইবে আমি থেকে বহুদূর !!
পাল্টে যাবে শেষ দৃশ্য, শুরু হবে আঁধারের মহা-উৎসব !

প্রিয়তম প্রিয় কি থাকবে তখনও.....? নাকি-
আমার অস্তিত্ব গলে জন্মো নেয়া এই কবিতাও গিলে খাবে ?

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement