রুপার প্রেমে পড়লে ভালো হত।
তখন আমি দ্বিপ্রহর রুপার দিকে চেয়ে থাকতে পারতাম।
নিরিবিলি কাছাকাছি বসতে পারতাম
আর জ্বালিয়ে রেখে মন
ছুঁয়ে দিতাম অবলীলায়...
রুপার মুখ, হাত, ঠোঁট আর স্পর্শের উষ্ণতা।

রুপা
জলের মতন
বুনো গন্ধ মাখা
আলতো করে ছোয়া ভেজা মন, সত্যি আর সবকিছু...
যাকে মন জুড়ে শোনা যায়।

রুপা, গভীরে ডূবে যেতে যেতে
সাজিয়ে দেওয়া
কথার পিঠে কথা
যে কথা কতকাল আগের দুপুরে
মন জুড়ে জ্বলে জ্বলে বলে গেছে,

“শোন, তোমাকে আলাদা করে
টের পাওয়া যায়...
তোমার রহস্যময় শ্বাস আর দ্বিধায়
আমি না হয় কবিতা হয়ে থাকবো...
বেঁচে থাকাটা হবে খুব আলাদা
হৃদয়ের গহীন গভীরতায়...“