দাঁড়কাক ডাকা দুপুরে আমি আমার ছায়াটিকে খুন করতে
উদ্যত হয়েছিলাম । শ্যাওলা ধরা কালীমন্দিরের পাশের
নির্জন রাস্তায় ভরদুপুরের অধিকতর নির্জনতায়
থুরথুরে বৃদ্ধের দাড়ির মত ঝুরিওয়ালা বড় বটগাছটার আড়ালে
ছায়াটাকে চেপে ধরলাম, হাতে কসাইয়ের গরুকাটা
ছুরির মত ধারালো বাকানো ছুরি; সেটা দেখে সে
এতটুকুও ভয় পেল না – এই দিনে-দুপুরে
নির্জন বটগাছের তলায় খুন হয়ে যাচ্ছে মনে করে
হাউমাউ করে সে একবারও কাদঁল না, আমার পায়ে
চোখের সমুদ্র মুছতে মুছতে প্রাণভিক্ষা চাইল না;
কী আশ্চর্য ! তবু ছায়াটিকে আমি ক্ষমা করে দিলাম
শুধু এই জন্যে
দুর্ধর্ষ ছুরি হাতে আমার খুনী চোখে চোখ রেখেও
আমাকে সে এতটুকু ভয় পায় নাই