দেয়ার গর্জনে নিদ্রা চূত
নিথর দেহ
স্বর্গ থেকে প্রস্থান
গমন অন্ধকার থেকে অন্ধকারে
না আমি একা নই!
সাথে কিছু গ্লানি, কিছু হতাশা
যেখানে আশা মাত্রই সব শূন্য
যেখানে আছে আশার ফসিল
আমি তো
চেয়েছিলাম ইতিহাসের নায়ক হতে
হয়েছি আমি ইতিহাসের পাষ্বচিত্র
উড়তে চেয়েছিলাম গগন জুড়ে
উড়ছি এখন চার দেয়ালে আবদ্ধ হয়ে
এই উড়া বিজয়ের জন্য নয়,
নয় অসাধ্য সাধনের জন্য
নয় স্বর্গে পাড়ি দেওয়ার জন্য
শুধু স্বপ্নটুকুকে উজ্জীবিত করার জন্য
চাইনা ফিরে পেতে বিদায় দেওয়া সুখকে
চাই না ফিরে পেতে সেই হাস্সোজ্জ্বল দিনগুলোকে
শুধু চাই ভেঙে যাওয়া স্বপ্নকে জোড়া দিতে।
নিন্দুকে আমি নিন্দিত করতে চাই না
চাই আমার কষ্টর ভার বহন করতে দিতে
আমি তো
অধম আপনোদনের জন্য
গরলকে গলাধঃকরণ করে
কর্পূর হতে চেয়েছিলাম
কিন্তু, বাষ্প যে ঘনীভূত হয়ে
লোনা বারি ঝরাবে- তা কে জানে?
আমি এখন থতমত, সর্বস্বান্ত
পীড়ন করেছি, পীড়া পেয়েছি
তবে পীড়া কেন আমায় ছাড়িয়া চলিল অন্যত্র?
হে সমঝদার! তুমি সামঞ্জস্য করে দাও
অপকর্মকে করিতে দিয়ে না কো আর কোন অপকর্ম।
দুর্বৃত্তকে করে দাও ভৃত্য
তাদের দাগ মোচক রূপে
তবুও আমার হৃদয়-মাঝে নিস্তব্ধ এক আশা
স্বর্গে আরেহন করে
সুখে সত্ত্ব হতে
সাথে নিয়ে তোকে।