অবেলায় কষ্টের ব্যস্ততা;
অবেলায় গল্পের স্তব্ধতা!
অবেলায় সরস্বতী-
হৃদয় খরস্রোতা
দরিয়া উথাল-পাথাল-
নিশীথে পতিব্রতা;
অবেলায় ঝিনুকমুগ্ধ, বেলা-অবেলায়
হরিৎহৃদয়
উজানের পথে সুজন হাঁটে, কাঁহারে
কী কথা কয়!
অবেলায় ভেবে নেয়া যাক-শহরে শহরে
স্নায়ুবৈকল্য
জানালায় বিভোরজোৎস্না মগ্নসত্ত্বার
নির্ঝরপ্রাবল্য;
ভেবে নেয়া যাক কড়িকাঠে ঘুণেদের অন্তরঙ্গ
প্রকাশভঙ্গি
অথবা ভাবনার গন্ডিতে নিঃশব্দ- শ্যেনদৃষ্টির
সহস্রকুলঙ্গি;

অবেলায় বৃষ্টির স্নিগ্ধতা
অবেলায় বর্ষার মুগ্ধতা
বেলা-অবেলায় মেঘে মেঘে জলের নিঃসঙ্গতা, একাকী
গোল্লাছুট
শিয়রে প্লাবন, স্বপনে শ্রাবণ, আশা-নিরাশার গ্রাফে কাঁপে
হৃদয় অস্ফুট;

অবেলায় চন্দ্রকলা
অবেলায় কীর্তনখোলা!
বেলা-অবেলায় বেলোয়ারী বাতাস; বাতাসে ওড়ে
স্বপ্নমঙ্গলকথা
না হয় তোমাকেই সঁপে দেবো বৈশ্বিক-অভিমান, ভরা বর্ষায়
একবুক শৈল্পিক প্রথা।