ডুবেছিলে ভোরের আলোর স্পর্শে – দেখেছে শুধুই
তুলেছ অনেক , যা বলতে পারনি এতদিন
রিমিঝিনি শব্দের সাতরঙ্গা সমবেত উৎসব ।

কি আছে প্রমান বিশেষ্য বিশেষণের ভোরের কোন অভিধা ।

অতন্দ্র প্রহরীর আড়াল , খুলে দাও ভোরের হলুদ আভায়
উড়ে যায় , কার মুখ সুক্ষ্ম ব্যঞ্জনার মুহূর্তেই , ইন্দ্রপুরে
বিমোহিত রুপ , ইচ্ছে কুসুম সুখ শুকনো পাতায় ।

ঋদ্ধ হবে , ভোরের আলোয় রোজ রোজ দৃকুল ছাপিয়ে সীমাহীন জীবন দর্শন ।

সময় থাকেনা ভোরের আলোয় রেখে দেওয়া উষ্ণতা পেলে
স্নায়ুলোক জানেনা ওম ধ্বনি পারণের গীত নিভৃতে নির্জনে – নিজেকেই দেখা
জল ফোঁটা ভোরের শিশির ভেজা চোখে একটাই পৃথিবী ।।