তিন মুঠি খুদ জীবনের বোধ
বেঁচে দিলে তুই ভয়ে মা জীবন!
তোর সন্তানে দিতে অবরোধ
কার আছে বল্ এমন বাঁধন।

আমি যে জন্ম থেকেই মা মৃত,
মৃত্যুতে তাই জন্মাতে চাই!
আপন জীবন বিলায়েও চাই
ঔপনিবেশিক রক্তের ঘৃত;

ভাবিস নারে মা তোর সন্তানে
মৃত্যুতে হবে ক্লীব জড়ত্ব!
বিশ্বক্ষুধার শাসনের ত্রাণ
তোর সন্তানে দিবে বীরত্ব!

মুক্তিপাগল জনতা-আশিষ
রয়েছে মা তোর ছেলের কপালে,
এই জীবনের অমৃতের বিষ
মৃত্যুতে চাই মিটাতেরে ভালে!

মুক্তি চাস্ না মানবতার মা?
ভয় কেন তবে শাসনে-বারণে!
আজই প্রথম চেয়েছি চরণে
এই জীবনের চাই তোর ক্ষমা!

দেখিস নে তোর ক্ষুদ্র হাসিতে,
ভুবন জয়ের তুচ্ছ ফাঁসিতে,
কাঁদবে দড়ির গিরার সুঁতোয়
মিথ্যা আইনে কলম গুঁতোয়!

মুক্তি এলোরে ক্ষুদির আলোয়,
রাম-রাবণের লঙ্কা চুলোয়!
চাই নাকো আর মানুষ পূজার,
সত্যেরে পূজ,হে মানবতার!

ক্ষুদিরাম বসু ভারত-অবতা
মুক্তি দিলো রে তাই মানবতা।
জীবনযুদ্ধে ক্ষুদিরাম-জয়
ফাঁসির মঞ্চে হাসি অক্ষয়।