বোশেখ দোলে তোমার কানের ফুলে,
বোশেখ জ্বলে তোমার ঠোঁটের লালে।
গায়ে তোমার সাদা মেঘের শাড়ি,
আসমানে আজ রঙের কাড়াকাড়ি।

ঠোঁটের আগুন শাড়ির পাড় জ্বালিয়ে,
কোমর ছুঁয়ে যাচ্ছে সে পালিয়ে!
পালায়নি তো! শাড়ির কিনার বেয়ে
আগুন-রঙা আলতা হল পায়ে।

বোশেখ-হাওয়া খোঁপার বেলী ফুলে,
ফুলের দোলায় হৃদয় ওঠে দুলে!
শোন বোশেখ, শোন বোশেখ-মেয়ে,
নিমন্ত্রণ এই রংহীন হৃদয়ে।

ঠোঁটের কিংবা পায়ের আলতা হতে
একটু যদি রঙের ছোঁয়া দিতে!
ডাকতে কাছে যদি আপন ভেবে,
বুকের আগুন বুকেই যেতো নিভে।