লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১৩ জানুয়ারী ১৯৭৮
গল্প/কবিতা: ৩৮টি

সমন্বিত স্কোর

২.২২

বিচারক স্কোরঃ ০ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.২২ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftপরিবার (এপ্রিল ২০১৩)

একটি প্রেমের গল্প
পরিবার

সংখ্যা

মোট ভোট ৩৭ প্রাপ্ত পয়েন্ট ২.২২

স্বাগত সজীব

comment ১০  favorite ০  import_contacts ১,৫৫৮
আজ আমি একটি গল্প শুনাব;
এই গল্পে একনিষ্ঠ প্রেমিক আমি,
প্রিয়তমাকে জীবনের চেয়েও বেশি ভালবাসি।
প্রিয়তমা যখন রাক্ষস পুরীতে,
নয় মাস লড়াই করে;
বীরের বেশে উদ্ধার করি তারে।

তারপর স্বপ্ন গড়ার দিন,
যেন আশা ভঙ্গের খড়গ নেমে আসে-
দীর্ঘ অন্তহীন।
যখন যার আশ্বাসে নিজেরে সঁপি,
সেই কপটের লাভ-ক্ষতির অংকে;
আমি হই বলি।
যখন যারে আপন করি,
যারা দেয় ভরসা;
বড়ই অদ্ভুত তারা।
সব মতলবির একই চেহারা,
মুঠি খুললে পুরনো প্রবঞ্চনা;
হয় খুনির সাথে স্বজনের আপোষ রফা।
হায়! ঘরের উঠোনে মাথা তুলে পরাজিত হায়েনা;
আবার কি তবে ধর্ষিত হবে আমার প্রিয়তমা।

এই প্রেমিক পরাজয় মেনে নিবে কিনা!
এই প্রশ্ন অবান্তর;
কে না-জানে প্রেম অকুতোভয়,
বেদ বাইবেল বা কোরআন সর্বত্রই প্রেমের জয়।

প্রিয়তমা স্বদেশ আমার;
আমি তো তোমার সেই প্রেমিক,
যে তোমার কাজে আসতে পেরে;
নিজেকে ধন্য ভাবি,
প্রতিটি সংকটে জেনো পাশেই আমি।
তোমায় যে ভালবাসি,
সে কথা ভুলিনা আমি।

পেশীবাদের ধ্বংস চাই, এ চাওয়া নতুন কিছু নয়;
সমস্ত গোঁড়ামি কি করে টিকে রয় - এটাই বিস্ময়।
যারা অশান্তি সৃষ্টি করে, যারা রক্ত পিপাসূ;
রক্ত আর লাশ নিয়ে যাদের রাজনীতি,
পুরো মানচিত্র জুড়েও যদি হয় তাদের আবাস;
এই প্রেমিক নিঃশ্চিত করে যাবে তাদের সর্বনাশ।
তারা যেখানেই থাকুক,
যে সুরক্ষিত ভবনেই আশ্রয় নিক,
জনবলে নিজেকে যতই বেষ্টিত করুক-
তাদের চুলের মুঠি ধরে, ঘাড় ধরে, কলার ধরে;
টেনে হিঁচড়ে নিয়ে আসা হবে জনতার মাঝখানে।
একটি প্রেমের গল্পের শেষ দৃশ্যে;
এভাবেই জাতি কলঙ্ক মুক্ত হবে।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement