বারি ঝরঝর মুখর বাদল
হোক আজ অবসান,
বিষাদ-মগনা পরাণ আবার
গাহিয়া উঠুক গান !
মেদুর বরষা! যাও গো সহসা,
আসিল শারদ-ভোর;
অরুনিমা মাথে, শেফালিকা-সাথে
খুলিয়া হিরণ-দোর ।
আজিকে বিদায়, বিদায় বরষা !
শ্রাবণ-দিবস-শেষে,
শারদ-গগনে শরত-লক্ষ্মী
দেখা দিক মধু হেসে ।
তাহার উজল হাসির আলোকে
উজলাক দশদিক,
ব্যথিত হৃদয় হোক প্রশান্ত
অথবা হাসুক ফিক্ ।
মেঘ-গুণ্ঠন খুলে অম্বর
চপল কিশোর-পারা
ঘননীল-বাসে মধুর মূরতি,
বিদায় শ্রাবণ-ধারা !
শত হৃদয়ের ব্যথার কাঁদন
কাঁদিলে যদিবা আর;
কাদিঁও না ওগো, ব্যথাতুরা তুমি
ঘুচাও পরাণ-ভার ।
বিদায় বিষাদ, আকুল কাঁদন
মনের শতেক জ্বালা,
নাহি যাচে বারি, ভরি ঘন-ঝারি
নহে আর বারি ঢালা ।
ঢল ঢল মম জলভরা আঁখি
হেরুক প্রভাত আজ,
নবীন আলোকে আপনার হোক
জাগর জগত সাজ ।