রোমন্থন

বন্ধু সংখ্যা

দীপক সাহা
  • ৯৩
  • 0
  • ৫০
হ্যালো ! প্রশান্ত ?
আমি অক্ষয়, তোর ভার্সিটি বন্ধু
চিনতে পারছিস ? বাব্বা হাফ ছেড়ে বাঁচলাম।
কাজলরেখার থেকে তোর নাম্বার......
ওকে চেনা যায় না জানিস- ফেরিতে দেখা।
কেমন কালচে হয়ে গেছে
কাজলের রেখার মতই ক্ষীণকায়...।
অথচ তুই বলতিস - অন্যের বুকে কাজলের মত
কালো দাগা দিতে যে পটু, সে-ই কাজলরেখা।

কাজলরেখা আকাশের কথা কিছুই বলল না।
শুধু বলল আকাশ নাকি মেঘে ঢেকে গেছে।
তোর মনে আছে ? ঠাট্টা করে বলতাম-
'কাজলরেখা ! ও কি শরতের, নাকি বর্ষার আকাশ
ঠিক ঠিক চিনে নিস কিন্তু !'
কাজলরেখা বাম হাতের অনামিকা দিয়ে
আকাশের কপাল ছুঁয়ে বলতো- এই দেখ্
কপালে কাজলের চিহ্ন এঁকে দিলাম
যেখানেই যাক, ঠিক খুঁজে পাবো।
সম্ভবতঃ আকাশকে খুঁজে পায়নি সে
অনন্ত মেঘের আড়ালে নিরুদ্দেশ হয়ে গেছে।

কি বলছিস ? সাগর ? কেমিস্ট্রির ?
মাথা খারাপ ! ফোন করতে সাহস হয়নি
অমন বড় বড় আছড়ে পড়া ঢেউয়ের সামনে
কিভাবে দাড়াবো আমি ?
বিরাট ব্যবসা জমিয়েছে শুনেছি
এ সাগর একদিন অতলান্ত হবে।
বেঁচে গেল ঝিনুক। বার দু'য়েক ঢেউয়ের
তোড়ে পড়েছিল, সামলে নিয়েছে।
সাবাস মেয়ে বটে শক্ত খোলক চেপে
ভেতরের মুক্তো আগলে রেখেছিল।
তোর মনে আছে , সাগর বলতো -
'ঝিনুকের পেটের মধ্যে অমূল্য মুক্তোর মালা
সাগরের অমৃতে মিশবে নাকি বানরে..'
সাগরে মেশেনি ঠিক, বানরে কিনা স্পষ্ট নয়।
মরে গেলে ঝিনুক নিশ্চয় ভেসে উঠবে।

দীপান্বিতার খবর কি ? ইডেনে পড়তো তাইনা ?
তুইতো দ্বীপ বলে ডাকতিস। আমি বলতাম-
'প্রশান্ত মহাসাগরে - জেগেছে বিশাল দ্বীপ
তাহার কপালে যেন - স্বর্গপুরীর টিপ'
তোর কপালেই শেষ পর্যন্ত, না ?
খুব ভালো লাগলো।
দ্বীপের মাটি কিন্তু উর্বর হয়- ফসলের অবস্থা কি ?

আমার কথা ? আর বলিস না।
অক্ষয়- অব্যয় অজর হয়ে বসে আছি।
বন্ধুদের ঠিকানা পেলেই চনমনে হয়ে উঠি
এখনো সংসারহীন বিবাগী।
ঠিকানাহীন টোকাপানা- শিকড় আছে অস্তিত্ব আছে
বেঁচে থাকার ইচ্ছে আছে, তবু নিরন্তর ভেসে চলা।
এভাবে ভাসতে ভাসতে একদিন
পেয়ে যাবো আলোর দরজা।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
রোদেলা শিশির (লাইজু মনি ) আমরা তাই কামনা করি যেন আপনি আলোর দরজা খুঁজে পান .
মিজানুর রহমান বকুল কবিতাটিতে গল্পের মত বেশ কয়টা চরিত্র উঠে এসেছে যাদেরকে সৃতির ফ্রেম থেকে তুলে আনার চেষ্টা করা হয়েছে । বন্ধুত্বের এক অনন্য সৃষ্টি কবিতাটা ।
জাহিদুল ইমরান দাদা আপনার কবিতাটা "কফি হাওজের সেই আড্ডাটা আজ আর নেই " এই বিখ্যাত কবিতার কথা মনে করিয়ে দেয় । অনেক সুন্দর লাগলো । পছন্দের তালিকায় রাখলাম ।
দীপক সাহা এমদাদ হোসেন নয়ন, আন্তরিক ধন্যবাদ আপনাকে।
দীপক সাহা রোহান শিহাব, আপনি আমার কবিতা পড়েছেন - খুব ভাল লাগলো।
এমদাদ হোসেন নয়ন স্মৃতিতে অমলিন বন্ধু/বেশ হয়েছে ভালো
রোহান শিহাব অনেক সুন্দর লেখেছেন দাদা । সত্য ঘটনা মনে হলো । বন্ধুদের সবাই যদি এইভাবে মনে রাখত, তাহলে আমাদের পৃথিবীটা অনেক সুন্দর হত ।
দীপক সাহা প্রজাপতি মন, প্রজাপতির মন ছুঁয়েছে কবিতা । এর চেয়ে ভাললাগার আর কি হতে পারে ?
প্রজাপতি মন অসাধারণ একটা কবিতা আর অসাধারণ সুন্দর সব বন্ধুদের নাম ! মন ছুঁয়ে গেল.
দীপক সাহা আহমেদ সাবের, সুন্দর দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে কবিতাটি দেখেছেন। অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই।

২৮ ফেব্রুয়ারী - ২০১১ গল্প/কবিতা: ৩ টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের আংশিক অথবা কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী থাকবে না। লেখকই সব দায়ভার বহন করতে বাধ্য থাকবে।

প্রতি মাসেই পুরস্কার

বিচারক ও পাঠকদের ভোটে সেরা ৩টি গল্প ও ৩টি কবিতা পুরস্কার পাবে।

লেখা প্রতিযোগিতায় আপনিও লিখুন

  • প্রথম পুরস্কার ১৫০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • ্বিতীয় পুরস্কার ১০০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • তৃতীয় পুরস্কার সনদপত্র।

আগামী সংখ্যার বিষয়

গল্পের বিষয় "বাংলা - আমার চেতনা”
কবিতার বিষয় "প্রেম”
লেখা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৮ জানুয়ারী,২০২২