আমি সেদিনই শ্রেষ্ঠ পিতা-মাতার সন্তান হতে পারবো,
যেদিন আমি আমার পিতা-মাতার আদর্শকে
সম্মান করে তাদের সেবা করতে পারবো।

আমি সেদিনই নারীকে সম্মান করতে পারবো
যেদিন আমি অন্য নারীদের আমার মা'য়ের জাতিতে দেখতে পারবো।

আমি সেদিনই বোনের সেরা ভাই হতে পারবো,
যেদিন আমার দ্বারা অন্য বোনকে হেফাজত করতে পারবো।

আমি সেদিনই ভাইয়ের ভাই হিসেবে পরিচয় লাভ করবো,
যখন ভাইয়ের প্রয়োজনে ভাইয়ের পাশে দাঁড়াতে পারবো।

আমি সেদিনই নিজেকে স্বার্থক মনে করবো,
যেদিন আঁধারের বুক চিড়ে নতুন ভোর আনতে পারবো এই সমাজে।

আমি সেদিনই নিজেকে বিত্তবান মনে করবো,
যে দিন আমার অর্জিত সম্পদ সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কাতারে অঢেল ব্যয় করতে পারবো।


আমি সেদিনই নিজেকে চিত্তবান মনে করবো
যেদিন আমার হিংসা, লোভ নিয়ন্ত্রণ করে সত্যকে জানার মধ্যে দিয়ে সবাইকে ভালবাসতে পারবো।

আমি সেদিনই নিজেকে প্রভাবশালী মনে করবো,
যেদিন আমার দ্বারা সমাজের নিকৃষ্ট কাজ গুলোকে ঘৃণা আর অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে পারবো।

আমি সে দিনই নিজেকে নেতা বলে মনে করবো,
যেদিন আমার নেতৃত্বে রাষ্ট্র তথা জাতির মঙ্গলজনক কাজ গুলো করতে পারবো।


আমি সে দিনই নিজেকে আদর্শবান বলে মনে করতে পারবো,
যেদিন আমি আমার সত্যকে চিনতে পারবো,
সত্যের মাধ্যমে।


আমি সে দিনই নিজের মধ্যে আনন্দ খুঁজে পাবো,
যে দিন আমার কর্মের মধ্যে দিয়ে অন্যরা
শান্তি বিলাস করতে পারবে মনের হরিষে।

আমি সেদিনই নিজেকে শ্রেষ্ঠ লেখক দাবি করতে পারবো,
যেদিন আমার লেখায় ফুটে ওঠবে জন সাধারণের
কষ্টের চিত্রের এক বিশাল ইতিহাস।

আমি সেদিনই নিজেকে বিদ্রোহী মনে করবো,
যে দিন আমি সমাজের কালপ্রিটদের পদাঘাত
করতে পারবো কঠোর আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে।

আমি সেদিনই নিজেকে শান্ত মনে করবো,
যেদিন সমাজে থাকবে না কোনো বিশৃঙ্খল ;
হবে না হানা হানি করবে না কেউ কলহল।

আমি সে দিনই নিজেকে মানব দরদি বলতে পারবো,
যে দিন আমি আমার উদাস মনে
স্রষ্টার সৃষ্টির সেবা করতে পারবো।

এসব কিছু ছাড়া আমি নিজেকে নিয়ে কখনো
ভাবতেই পারবো নাহ যে, আমি একজন মানুষ।