ভয়

ভয় সংখ্যা

দীপঙ্কর বেরা
  • 0
  • 0
  • ৪৯
ধর্মতলার জনবহুলে হঠাৎ বিস্ফোরণ। মার্কেটের অনেক পুরনো দোতলার পুরোটাই ভেঙে পড়েছে। আর্ত চিৎকারে কেউ বা কতজন মরেছে জানা যায় নি। সবাই প্রাণপণে ছুটছে। আমি ছুটে বেরোনোর মুখে দেখি একটা লোক ভেঙে পড়া দেখে শব্দ করে হাসছে। লোকটাকে চিনি না। তাও রূঢ় গলায় বললাম - হাসছেন?
লোকটা তেমনি খিকখিক করে জবাব দিল - তাতে আপনার কি? রোজ স্ফূর্তিবাজরা এ রকম একটু আধটু আর্ত চিৎকার করুক। ক্ষতি কি?
আমি নিজেকে শুভবুদ্ধিসম্পন্ন ভাবি। তাই শুভবুদ্ধি ফেরাতে দাঁড়ালাম। বললাম - এ ধ্বংস তো আমাদের। দেশের দশের ধ্বংস। আমরা আর কতটুকুই বা সৃষ্টি করতে পারি?
লোকটি রক্তচক্ষুতে হাসল। গলার জোর বাড়িয়ে বলল - আমিও কোষাগার পেলে যে কোন সময় শাহজাহান হতে পারি। সে জন্য আমরাও এইভাবে জন সমর্থনে এগোচ্ছি।
- আর মৃত্যু? এত রক্ত? এরকম ভেঙে পড়া? ধ্বংস? জীবন যন্ত্রণা? আমরা কি একটাও প্রাণ সঞ্চার করতে পারি?
পিত্তি জ্বলে যাওয়ার মত খ্যা খ্যা করে হাসল লোকটা। বলল - কেন? দশ বিশটা মেয়ে এনে দিন না দেখিয়ে দিচ্ছি। কত প্রাণ চাই? টাটকা জীবন। দেখছেন না কিভাবে আমরা বাড়ছি।কিভাবে আমরা নিজেদেরকে বাড়াচ্ছি? আমরাই রাজ করব পৃথিবী?
- কিন্তু সেও তো অন্যের সাহায্যে? নিজে আপনি কি পারেন?
- আমরা কি পারি আর কি পারি না? এত বড় একটা কাণ্ড দেখেও শিক্ষা হচ্ছে না? আর কবে শিখবেন?
ইতিমধ্যে প্রচুর লোক উদ্ধারের জন্য চলে এসেছে। বেশ কয়েকটা অ্যাম্বুলেন্স এসেছে। রক্ত আর্ত টানাহেঁচড়া চলতে লাগল। দমকলের গাড়ি দূরে ঢং ঢং করছে। ভিতরে ঢুকতে পারছে না। কোথাও জ্বলতে থাকা আগুন দাউ দাউ করে জ্বলছে।
পেছন দিকে পুলিশের গাড়ি কি সব খুঁজতে খুঁজতে সামনের লোকটিকে হঠাৎ চেপে ধরল। পুলিশ লোকটির কলার চেপে ধরে টানতেই, লোকটি আরও লাল চোখে তাকিয়ে আমাকে উদ্দেশ্য করে বলল - তোমাকে আমি দেখে নেব। শুভবুদ্ধি, দেখাচ্ছি তোমার মজা! তোমাকে আমি আরও ভাল করে চিনিয়ে দেব, আমি কে?
সেই থেকে আমি খুব ভয়ে আছি।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
ফয়জুল মহী খুবই সুন্দর এবং অসাধারণ অনুভূতির সুনিপুণ বুনন , অনেক অনেক ভালোলাগা রইল

২৬ মে - ২০২০ গল্প/কবিতা: ২ টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের আংশিক অথবা কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী থাকবে না। লেখকই সব দায়ভার বহন করতে বাধ্য থাকবে।

প্রতি মাসেই পুরস্কার

বিচারক ও পাঠকদের ভোটে সেরা ৩টি গল্প ও ৩টি কবিতা পুরস্কার পাবে।

লেখা প্রতিযোগিতায় আপনিও লিখুন

  • প্রথম পুরস্কার ১৫০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • ্বিতীয় পুরস্কার ১০০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • তৃতীয় পুরস্কার সনদপত্র।

বিজ্ঞপ্তি

“অক্টোবর ২০২১” সংখ্যার জন্য গল্প/কবিতা প্রদানের সময় শেষ। আপনাদের পাঠানো গল্প/কবিতা গুলো রিভিউ হচ্ছে। ১ অক্টোবর, ২০২১ থেকে গল্প/কবিতা গুলো ভোটের জন্য উন্মুক্ত করা হবে এবং আগামি সংখ্যার বিষয় জানিয়ে দেয়া হবে।

প্রতিযোগিতার নিয়মাবলী