বর্ষা এলে বর্ষা এলে
আমি আমার জীবনের নৌকা ভাসাই ভরসার জলে,
উথাল পাথাল টেউ তুলি সংসার সমতলে,
ইচ্ছের টাপুরটুপুর গড়ি জুঁই কামিনীর ঘন জঙ্গলে,
প্রেম যমুনায় স্নান করে ফিরি রাধার ভেজা আঁচলে।
বর্ষা এলে বর্ষা এলে।

বর্ষা এলে বর্ষা এলে
কিশলয় মন চারিদিকে শুধু সবুজের খেলা খেলে,
স্রোত হয়ে যেদিকে ইচ্ছে যায় সে ভেসে চলে,
ছলাৎ ছলাৎ রাঙা স্বপ্ন হয়ে কত কথা যায় সে বলে,
বুকের ভেতরে রিমঝিম ঝিরঝির টুপটুপ সুর তোলে।
বর্ষা এলে বর্ষা এলে।

বর্ষা এলে বর্ষা এলে
জানলায় আমি একলা মুখ ছিটেফোঁটা বৃষ্টির করতলে,
তোমাকে দেখার এই মেঘ এই রোদ্দুরের দোলাচলে,
ভিজতে ভিজতে পাখিদের পালকের মত কাদাজলে
তোমার সঙ্গে হৃদয়ের মোহনায় আমার সঙ্গম চলে।
বর্ষা এলে বর্ষা এলে।

বর্ষা এলে বর্ষা এলে
আমার এ কুল ভাঙা ও কুল গড়া সংসার বয়ে চলে,
ভরা পুকুরে আমি সাঁতার কাটি হাঁসেদের পাখনা মেলে
ঝাপসা দূরে ফিরছে পথিক আমারই উজান বিহ্বলে,
নোনা গন্ধের রেশ কাটিয়ে এবার নবান্ন হবে মাঠ ফসলে।
বর্ষা এলে বর্ষা এলে।

বর্ষা এলে বর্ষা এলে
তোমাকে দেখি আমি প্রথম বৃষ্টির আষাঢ়ী চোখ মেলে
পেখম মেলে দিই আমি মেঘমেঘ ময়ূরী ডাকার ছলে,
রাত জাগা আবেশ ঘন তোমার প্রেমের বাহুতলে
টুপটুপ বৃষ্টির ফোঁটা আমার জীবনী এভাবেই লিখে ফেলে।
বর্ষা এলে বর্ষা এলে।
আমার জীবনে বর্ষা এলে।