তোমায় গোধূলি লগণে প্রথম দেখায় হৃদয়ে দ্রিমদ্রিম তানে।
বোধ হয় থেমে গেছিল ঘড়ির কাটা,থেমে গেছিল নদীর স্রোত।
ভুলে গেছিল ছাতক পাখিও তার দিকটা।

মায়াবীনি ছাউনিতে আটকে ছিল আমার এ দুটি চোখ।
গোমটার আড়ালে এক জ্বলন্ত হাসি,
ভেঙে যায় অবুঝ হৃদয়ের সব প্রাচীর।

যুগল ঠোঁটে লালছে আভায়,যেন কথার সাজে পাপড়ি ঝরে।
সেই ঠোঁটে এঁকে দিতে চাই আমার ভালবাসা চিহ্ন।
কেশ যে তার জামকালো,কটিদেশ আবৃত।

মম হৃদয়ে আঁকলো ছবি নাম না জানা অপ্সরীর।
মাথায় যে তার শিরোভূষণ অপরূপ সাজ!
মনে হয় যেন দাঁড়িয়ে আছে জলজ্যান্ত  এক পরী।

দুধে আলতা পা দুখানি,রিনঝিন নুপুরের শব্দে
হৃদয়ের অন্তরালে বেজে উঠে, তোমায় ভালবাসি।
তোমাকে পেতে চাই এ মন, কোন বর্ষাস্নাত রাতে।