কবিতাটি তেহেমন্তঋতুর সার্বিক বিষয় অন্তর্ভুক্ত করার চেষ্টা করেছি। মাঠে পাকা ধান, ধানের ঘ্রাণ। কৃষাণ কৃষাণীর আনন্দ। হেমন্তে গ্রাম গুলোর অবস্থা। মেলার আনন্দ। মানুষে মানুষে ভালবাসা ইত্যাদি।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২৫ ডিসেম্বর ১৯৮৬
গল্প/কবিতা: ১টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - নবান্ন (অক্টোবর ২০১৯)

নবান্ন
নবান্ন

সংখ্যা

মতিউর রহমান

comment ২  favorite ১  import_contacts ৩৬
এই হেমন্তের ভোর, মৃদু কুয়াশা চাদর;
বয় মৃদু মন্দ মলয়, সোনালী সূর্যোদয়;
শিশির কণা ঘাসে, মণিমুক্তা সম হাসে;
নতুন ধানের ঘ্রাণ, পুলকিত প্রতি প্রাণ
চাষা চাষীর জন্য, ঘরে ঘরে নবান্ন।।

পাকা ধানের বাস, ঐ ধূসর নীলাকাশ;
ধান কাটে চাষী; গান, কৌতুকে, হাসি;
মাটির সোঁদা গন্ধ, শস্যে সুখে আনন্দ;
নতুন ধানের ঘ্রাণ, পুলকিত প্রতি প্রাণ
চাষা চাষীর জন্য, ঘরে ঘরে নবান্ন।

উঠানে উঠানে ধান, লহ্মীর পালা গান;
ঢেঁকিতে ধান ভানা, নাইওর নি আনা;
পোলাও পিঠা ফিরনি, মুড়ি নাড়ু শিরনি;
নতুন ধানের ঘ্রাণ, পুলকিত প্রতি প্রাণ
চাষা চাষীর জন্য, ঘরে ঘরে নবান্ন।

মেলায় খেলায় মাতি, পালা পার্বন সাথী;
ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে, মানুষ মিলেমিশে;
ভাই ভাই সহোদর, এই হেমন্তের ভোর;
নতুন ধানের ঘ্রাণ, পুলকিত প্রতি প্রাণ
চাষা চাষীর জন্য, ঘরে ঘরে নবান্ন।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement