রাত্রিবেলা শব্দ শুনে আড়মোড়া ভেঙে জাগি,
দরজা খুলে চলে গিয়েছে দেশমাতার লাগি।
প্রেয়সী তার বাঁধা দেবে এই ভয় পেয়েছে,
আঁচলে এই চিরকুট সাবধানে তাই বেঁধেছে।

খুকির আমার বয়স কত হিসেব পারিনা কিছু,
মেয়ে আমার অনেক লক্ষ্মী ঘটক লেগেছে পিছু।
মেয়ের এখন বিয়ে দেবোনা বয়স হোক আগে,
মিলিটারিতে নিয়ে গেছে পাখিরা যখন জাগে।

ওরে খোকা কোথায় যাস ভাতখানি মুখে দে,
কাল রাতের বিভীষিকা শুনিস তার পরে।
পিছু ডাকো না এই বেলা যেতে দাও মা,
স্বাধীনতা না নিয়ে তোমায় দেখব না।

এই যে শুনি ঐ যে দেখি উল্লাস জনতার,
স্বাধীন হয়েছে দেশ তোমরা এসো এবার।
তিনটে থালায় ভাত বেড়ে বসে শুধুই থাকি,
তোমরা কেন আসছো না খাচ্ছে বিড়াল পাখি।

তোমায় নিয়ে বেঁচে আছি ওগো আমার দেশ,
সব স্বজন ছেড়ে গেছে ভালবাসা শেষ।
শক্ত হয়েছে পাথরসম আমার নরম মন,
তোমার তরে ত্যাগ করেছি আমার সকল ধন।