মনই মন প্রশ্ন করে কি যে হয় প্রেমের মানে ,
কত ইতিহাস রচিত হয় লোকে বলে প্রেমের টানে ।
কাহারো মতে ভালবাসার টান কখনও মায়ার বন্ধন ।
কাহারো কথায় নেই কোনো যুক্তি, কেউ কহে ভক্তি
প্রেম দ্বারা অনেকেই করেছেন বিশ্বজয়,
কহেছেন প্রেমই নাকি একমাত্র মানবজাতির মুক্তি ।
যত জীব তত প্রেম, জড়ের মধ্যে নেই এর কোনো গেম ।

কত রকমের প্রেম সাজে এ ধরনীর মাঝে
প্রেমের সংজ্ঞাই বা কি হতে পারে মনুষ্যজাতীর কাছে ।
আর বিজ্ঞান বলে প্রেম নাকি বহুরূপী,
আসে ভিন্নরুপে ভিন্ন হরমোন ক্ষরণে ।
কেউ আমারে প্রশ্ন করলে বলি এক অনুভূতি
যা সময়ের সঙ্গে পরিবর্তন হয়
আর যাতে আছে আত্মার তৃপ্তি ।
সমাজের কয়েক ঘটনা তুলে ধরে,
বোঝাতে চাই প্রেম কারে বলে ।

সংসারের কর্মের ফাঁকে,
বারে বারে খোকারে ডাকে।
বাবার ঐ বিষন্ন মুখে ফিরেছে হাসি দিনের শেষে,
কন্যার মুখে সেই নিষ্পাপ কথাগুলো শুনে ।
বন্ধুদের সাথে আড্ডা মেরে ,
চায়ের দোকানগুলো চলে ধার বাকীতে ।
ভোলা কাকুর মুরগী চুরি করে,
ছোকরারা গান চালিয়ে পিকনিক করে ।
ভোলাপুত্র মোটর সাইকেলে ধাক্কা খেলে,
ছোকরারা সব তারে নিয়ে হাসপাতালে ছুটে ।
বোনের আদুরে বাইনা দেখে,
দাদা গলার চেন আনল ঘরে ।
এসবই কি ভালোবাসা না আবেগপূর্ণ প্রেম ,
আত্মার শান্তি মিলে সবই বিধাতার গেম ।।

পাড়ার মড়লরা কেন করে হায় !
কি এমন তারা ফেলেছে শুনে ,
মাস্টারের সেই ছোট্ট মেয়ে ,
হয়েছে সে এখন এত বড়ো
পড়েছে নাকি স্যানালদের ছোকরার প্রেমে ।
মড়লদের আড্ডায় পড়েছে মাস্টারের ছায়া,
এক মড়ল শুনাই তাহার কন্যার প্রেমের কথা ।
মাস্টারের উত্তর শুনে সকলেই নির্বাক,
কহে "এই বয়সটা যে তাদের প্রেম করার-
বয়স কি আছে তোমার আর আমার "।
দোলুই পাড়ার দুই ছেলে মেয়ে,
দুই বাড়ির কেউ রাজি নয় বলে ,
নিজেদের ভালবাসার টানে ,
কাটা হয়েছে এক্সপ্রেস ট্রেনে ।
মা কাঁদে বাবা তুই গেলি চলে ,
কত জায়গায় কত মানত করে পেয়েছিলাম তোরে ।
লীলা মাসি পাগলী হয়ে
কহিতে রহে আমার স্বামী যাবে আমারে লয়ে ।
নীলুদার প্রেম গেছে ব্যর্থ ,
সেই সময় তার ছিল না অর্থ ।
হৃদয় নাকি এখনও ভালোবাসে তারে,
বিয়াল্লিশের নীলুদা তাকে নিয়ে দিব্যি স্বপ্নে সংসার করে ।
আসলে এসবই কি ভালোবাসা না আবেগপূর্ণ প্রেম ,
ইহাতেই কি আত্মার শান্তি মিলে না এসবই হল বিধাতার গেম ।।