এই কবিতাটি কিশোর বয়সের স্মৃতি নিয়ে লিখা। তাই এবারের টপিকের সাথে সম্পূর্ণই সামঞ্জস্যপূর্ণ ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ মার্চ ১৯৮০
গল্প/কবিতা: ৩টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কৈশোর (সেপ্টেম্বর ২০১৯)

স্মৃতির মিনার
কৈশোর

সংখ্যা

তৈয়বা মনির

comment ১  favorite ০  import_contacts ৩২
মনে পরে সেদিনের কথা
যা গিয়েছে চলে
সুখগুলো কথা কয়
হৃদয় মন্দিরে
অকারণ হাসা-হাসি
অকারণ কথার বুলি
সহজ-সরল আনন্দ গুলি
স্মৃতির মিনারে l

সবুজ মাঠে আউলা হাওয়ায়
ফসলের নাচানাচি
ধূলিমাখা পথে খেলার নেশায়
কিশোরের চেঁচামেচি
নদীর জলে সাঁতারের ছলে
লাফালাফি-দাপাদাপি
কার গাছে কোন ফল পেকেছে
চুরির ফন্দিগিরি
চুরির দায়ে মায়ের শাসন
বিধি-নিষেধ কড়াকড়ি
আড়াল হতেই মুখ লুকিয়ে
হাসিতে গড়াগড়ি
এমন সরল আনন্দগুলি
স্মৃতিতে খুঁজে ফিরি l

সারাদিন ধরে কোদাল হাতে
ক্রিকেটের পিচ গড়া
পতিত মাঠে ফুটবল পায়ে
বিকেল বেলার খেলা
গোল্লাছুটের গুল্লা ছুঁতে
কিশোরীর খুবই তাড়া
বৌচি আর দাড়িয়াবান্দার
পাগলপ্রেমী সারা
পড়ন্ত বিকালে দিগন্ত মাঝে
স্বপ্ন রঙিন ছোঁয়া
গোধূলি বেলায় নীলিমাতে
সূর্যডুবা দেখা l

কৃষ্ণ কিশোরীর কালো চুলে
কী যে স্বপ্ন মাখা !
কালো চোখের কাজল হতে
স্বপ্নের ছবি আঁকা
কিশোরের ভীরু চাহনিতে
সপ্নীল ভীরু আশা
না বলা কথা বলার নেশায়
তুচ্ছ ছুতো খোঁজা
ফেলে এসেছি সেই সময়
যোজন যোজন দূরে
সুখ গুলো নাড়া দেয়
স্মৃতির মন্দিরে
অকারণ হাসাহাসি
অকারণ কথার বুলি
সহজ-সরল আনন্দগুলি
হারিয়ে ফেলেছি l

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement